শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জুলাই, ২০২১ ০২:৪২
প্রিন্ট করুন printer

কিশোরগঞ্জে নতুন করে আরও ১৪৮ জনের করোনা শনাক্ত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জে নতুন করে আরও ১৪৮ জনের করোনা শনাক্ত
প্রতীকী ছবি
Google News

কিশোরগঞ্জে নতুন করে মঙ্গলবার (২০ জুলাই) রাত ১০ টা পর্যন্ত ১৪৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৭ হাজার ৭৫২ জন। 

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৬০ জন, হোসেনপুরে ১৭ জন, করিমগঞ্জে ৪ জন, তাড়াইলে ২ জন, পাকুন্দিয়ায় ১১ জন, কটিয়াদীতে ৯ জন, কুলিয়ারচরে ২ জন, ভৈরবে ২০ জন, নিকলীতে ৩ জন, বাজিতপুরে ১৭ জন, ইটনায় ২ জন ও মিঠামইনের একজন রয়েছেন। 

সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান মঙ্গলবার (২০ জুলাই) রাত সাড়ে ১১ টার দিকে এসব তথ্য জানিয়েছেন। 

তিনি আরও জানান, গত ১৫, ১৭, ১৮, ১৯ ও ২০ জুলাই কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি পিসিআর ল্যাব হতে (প্রি আইসোলেশনে ভর্তিকৃত জরুরী রোগীসহ) ২৮৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, সোমবার (১৯ জুলাই) বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে ৭২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল, কিশোরগঞ্জ বক্ষব্যাধি ক্লিনিক, হোসেনপুর, করিমগঞ্জ, পাকুন্দিয়া, ভৈরব, বাজিতপুর ও মিঠামইন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোট ১৪৯ জনের রেপিড এন্টিজেন টেস্টে ৬৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

সিভিল সার্জন আরও জানান, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৩৪ জন, সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন ৬৪ জন, এ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ৯ জন। জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ১২৯ জন।

তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৫৫ জন। এ পর্যন্ত জেলায় মোট ৬ হাজার ৬ জন সুস্থ হয়েছেন। বর্তমানে জেলায় সর্বেমোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ৬১৭ জন। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ৭২১ জন, হোসেনপুরে ৮০ জন, করিমগঞ্জে ৫০ জন, তাড়াইলে ৫৭ জন, পাকুন্দিয়ায় ১৬০ জন, কটিয়াদীতে ২০৩ জন, কুলিয়ারচরে ৪৬ জন, ভৈরবে ১৫৪ জন, নিকলীতে ১৭ জন, বাজিতপুরে ৬৯ জন, ইটনায় ৩৪ জন, মিঠামইনে ২২ জন ও অষ্টগ্রামের ৪ জন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ১ হাজার ৫৪৭ জন। আর হাসপাতাল আইসোলেশনে রয়েছেন ৭০ জন। 
গত ২৪ ঘণ্টায় টিকার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন ৩ হাজার ৮১৩ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করেছেন ১ লাখ ৬৩ হাজার ৫৫৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় কেউ টিকা গ্রহণ করেননি।

জানা গেছে, গত ১৯ জুন থেকে সাইনোফার্ম ভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন ২০ হাজার ২২০ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ টিকা নিয়েছেন ৭৬ হাজার ৬৬৫ জন এবং মোট দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৫৯ হাজার ৩০৭ জন।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ আল সিফাত