Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
প্রকাশ : ২৪ এপ্রিল, ২০১৯ ১৭:৩৩

ধুনটে স্বামীর দেয়া ওষুধ সেবনে গৃহবধূর মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া:

ধুনটে স্বামীর দেয়া ওষুধ সেবনে গৃহবধূর মৃত্যু
প্রতীকী ছবি

বগুড়ার ধুনটে স্বামীর দেয়া মোটাতাজাকরণ ট্যাবলেট সেবনে রত্না খাতুন (২২) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বুধবার দুপুরে উপজেলার চরনাটাবাড়ী গ্রাম থেকে পুলিশ ওই গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ হয়েছে। এঘটনায় পুলিশ নিহতের স্বামী শাহাদত হোসেন (৩০), তার মা সাহারা বেগম (৪৫) ও বোন রানী বেগমকে (২৩) আটক করেছে।

বগুড়ার ধুনট থানা পুলিশ জানায়, শেরপুর উপজেলার মোমিনপুর গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে শাহাদত হোসেনের সাথে গত তিন বছর আগে ধুনট উপজেলার চরনাটাবাড়ী গ্রামের গাজিউর রহমানের মেয়ে রত্না খাতুনের বিয়ে হয়। তাদের দাম্পত্য জীবনে ২ বছর বয়সের ছেলে সন্তান রয়েছে।  

নিহতের বাবা গজিউর রহমান জানান, তার মেয়ে রত্না খাতুনের বিবাহের পর থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবনে ঝগড়া-বিবাদ লেগেই থাকতো। বিষয়টি স্থানীয় ভাবে কয়েকবার আপোষ মিমাংসাও করা হয়। গত ২৩ এপ্রিল মেয়ে রত্নার ও মেয়ে জামাই নন্দীগ্রাম থানার মুরাদপুর গ্রামে বেড়াতে যায়। যাওয়ার সময় জামাই মেয়ের জন্য মোটা হওয়ার ওষুধ বড়ি কিনে দেয়। রাত সাড়ে ৮টায় ওষুধটি খাবার পর মেয়ের বমি শুরু হলে জামাই পালিয়ে যায়। পরে মেয়েকে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার মেয়ের শারীরিক অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণের জন্য রেফার্ড করে। রেফার্ডের কাগজপত্র বুঝতে না পেরে মেয়েকে নিয়ে ধুনট উপজেলা হাসপাতালের দিকে রওনা হলে পথিমধ্যে ধুনট উপজেলার মাঠপাড়া এলাকায় সিএনজির ভিতরেই মেয়ে রত্নার মৃত্যু হয়।

বগুড়ার ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইসমাইল হোসেন বলেন, মোটা হওয়ার ট্যাবলেট খেয়ে মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ হয়েছে। তবে ঘটনাস্থান নন্দীগ্রাম থানা এলাকায় হওয়ায় সেখানে মামলা দায়েরের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এঘটনায় আটককৃত নিহতের স্বামী, মা ও বোন ধুনট থানা থেকে নন্দীগ্রাম থানায় সোপর্দ করা হবে। ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃত্যুর কারণে বিষয়ে বলা যাবে। 

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার


আপনার মন্তব্য