Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ মে, ২০১৯ ২২:৫৩

খাদ্যগুদাম কর্মকর্তাকে অস্ত্র দেখিয়ে ৩৬ লাখ টাকার চেক নেওয়ার অভিযোগ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

খাদ্যগুদাম কর্মকর্তাকে অস্ত্র দেখিয়ে ৩৬ লাখ টাকার চেক নেওয়ার অভিযোগ!

বরিশালের গৌরনদী উপজেলা ভারপ্রাপ্ত খাদ্যগুদাম কর্মকর্তার টেবিলে আগ্নেয়াস্ত্র রেখে চাপ প্রয়োগ করে ৩৬ লাখ টাকার চেক লিখিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নুরুজ্জামান ফরহাদ মুন্সীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তুলেছেন খাদ্যগুদাম কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র পাল। 

এ ঘটনায় সোমবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খালেদা নাছরিনের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি।

অভিযোগে সুভাষ চন্দ্র পাল উল্লেখ করেন, চলমান সরকারের চাল সংগ্রহ কার্যক্রমে ১১২০ মেট্রিক টন চাল সরবরাহের কাজ পান স্থানীয় এলাহী অটো রাইস মিলের মালিক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. নুরুজ্জামান ফরহাদ মুন্সী। তিনি অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে কোন প্রকার নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে এবং সরকারি নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করে গৌরনদী খাদ্যগুদামে পঁচা চাল ও ছেড়া বস্তা দিয়ে আসছিলেন। তিনি (সুভাষ) ওই গুদামে যোগদান করার পর ভাইস চেয়ারম্যানের এসব কার্যকলাপে বাঁধা দিলে তাকে শারীরিক ভাবে লাঞ্চিত করেন ভাইস চেয়ারম্যান। যা খাদ্য পরিদর্শক অশোক চৌধুরীকে অবহিত করেন তিনি। 

সুভাষ চন্দ্রপাল জানান, সম্প্রতি দেশব্যাপী ধান সংগ্রহের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ অনুযায়ী গৌরনদীতেও তারা কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহে ব্যস্ত। এ অবস্থায় গত ১৮ মে ফরহাদ মুন্সী তার কাছে গিয়ে গুদামে চাল দেওয়ার প্রস্তাব করেন। তিনি এই মুহূর্তে চাল নয়, ধান ক্রয়ের জন্য গুদাম খালি রাখার প্রয়োজনীয়তার কথা জানালে, ফরহাদ মুন্সি ক্ষুব্ধ হয়ে তাকে তার অফিস কক্ষে অবরুদ্ধ করে রাখেন এবং তার টেবিলে অস্ত্র রেখে তাকে চাপ প্রয়োগ করেন। এরপর জোরপূর্বক তার কাছ থেকে ৩৬ লাখ ৭শ’ ২০ টাকার (ছত্রিশ লাখ সাত শ’ কুড়ি টাকা) টাকার একটি আগাম চেকে জোর পূর্বক সাক্ষর করিয়ে নেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ মুন্সি। 

এ অবস্থায় নিজের চাকরি ও কর্মক্ষেত্রে জীবনের নিরাপত্তার কথা ভেবে বিকেলে গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ ও আবেদন করেন তিনি। 

গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) খালেদা নাছরিন খাদ্য কর্মকর্তার অভিযোগ ও আবেদন প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লিখিত অভিযোগ তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 
 
এ বিষয়ে গৌরনদী উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও এলাহী এ্যাগ্রো অটো রাইস মিলের মালিক নুরুজ্জামান ফরহাদ হোসেন মুন্সী বলেন, বকেয়া বিলের জন্য ১৯ মে তিনি উপজেলা ভারপ্রাপ্ত খাদ্যগুদাম কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়েছিলেন। তিনি বিলের চেক নিয়ে এসেছেন। সেখানে কোন ধরনের অস্ত্র প্রদর্শন কিংবা হুমকির ঘটনা ঘটেনি। তার নিজ দলীয় প্রতিপক্ষের কেউ এ বিষয়টি নিয়ে গুজব ছড়াচ্ছে বলে দাবি করেন ভাইস চেয়ারম্যান ফরহাদ মুন্সি।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য