শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৪:৫৮

মারধরের অভিযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নারী আইনজীবীর মামলা

পটুয়াখালী প্রতিনিধি:

মারধরের অভিযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে নারী আইনজীবীর মামলা

তুচ্ছ ঘটনায় প্রকাশ্যে নারী আইনজীবীকে মারধোরের ঘটনায় গলাচিপা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিন শাহ্’র বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আজ দুপুরে আইনজীবী উম্মে আসমা আঁখি বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। আদালতের বিজ্ঞ বিচারক নিতাই চন্দ্র সাহা মামলাটি আমলে নিয়ে এজাহার হিসেবে গণ্য করে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য গলাচিপা থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন। মামলা নম্বর ৫৩০/১৯। 

মামলার বিবরণে আইনজীবী উম্মে আসমা আঁখি উল্লেখ করেন, আসামি চেয়ারম্যান শাহিন শাহ্ একজন সন্ত্রাসী, প্রভাবশালী, বেপরোয়া, মাদক সম্রাট ও দুশ্চরিত্রের লোক। আমার (উম্মে আসমা আঁখি) শ্বশুর মো. দুলাল চৌধুরীর সাথে আসামি মুহাম্মদ শাহীন শাহ্’র বিরোধ থাকায় ঘটনার দিন আসামি মোবাইল ফোনে আমার শ্বশুরকে অশ্লীল গালিগালাজ করে তার সাথে সাক্ষাৎ করতে বলে। আমার শ্বশুর অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি আমার শ্বশুরকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন। ইতিমধ্যে আমি পেশাগত দায়িত্বপালনের জন্য গলাচিপা বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে যাওয়ার পথে আসামি অপরিচিত দু’জন ব্যক্তি দ্বারা আমাকে ১২ সেপ্টেম্বর দুপুর সোয়া দুইটার দিকে উপজেলা পরিষদের সামনে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। আমি আসামিকে গালিগালাজ করিতে নিষেধ করলে শাহিন শাহ্ আমাকে এলোপাথারী কিল, ঘুষি ও তলপেটে লাথি মারে এবং আমার পড়নের কাপড়-চোপড় টানাহেচরা করে আমার শ্লীলতাহানী ঘটায়। আমার ডাকচিৎকারে আসেপাশের ব্যক্তিরা এসে আমাকে আসামির হাত থেকে রক্ষা করে। আমি তাৎক্ষণিক গলাচিপা আইনজীবী সমিতিতে গিয়ে বিষয়টি জানাই এবং গত ১৩ সেপ্টেম্বর গলাচিপা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি।

এসব ব্যাপারে চেয়ারম্যান শাহিন শাহ্ বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, মামলার ঘটনার সাথে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। আইন বিচার করবে যে প্রকৃত ঘটনা কী।

উল্লেখ্য, গত ১২ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুরে গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ের সামনে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে আইনজীবী উম্মে আসমা আখিকে জনসম্মুখে চর থাপ্পর-লাথি মারেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহিন শাহ্। প্রতিকার চেয়ে ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার রাতেই ওই উপজেলা চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনী কর্তৃক তার বসতবাড়ীতে হামলার আশংকা এবং নিজের নিরাপত্তা চেয়ে গলাচিপা থানায় সাধারন ডায়েরী করেন ওই নারী আইনজীবীর শ্বশুর উপজেলার ৯নং কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. দুলাল চৌধুরী। পরে ১৩ সেপ্টেম্বর নারী আইনজীবীও একই থানায় ভিন্ন একটি জিডি করেন উপজেলা চেয়ারম্যান শাহিন শাহ’র বিরুদ্ধে।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর