শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১০:৪৫
আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ১১:১১

কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি, ফের বন্যার আশঙ্কা

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি:

কুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি, ফের বন্যার আশঙ্কা

অবিরাম বর্ষণ ও ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কুড়িগ্রামের সবকটি নদ-নদীর পানি নতুন করে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ফলে এ জেলায় চতুর্থ দফায় বন্যা শেষ হতে না হতেই নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে আবারও বন্যা পরিস্থিতির আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। 

বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় আবারও ধরলা নদীর পানি অনেক বেড়ে বিপদসীমার ৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত ৪দিন আগে চতুর্থ দফা বন্যায় জেলার প্রায় সাড়ে ৪ হাজার হেক্টর আবাদি জমির ফসল নিমজ্জিত হয়। নতুন করে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টিতে নদ-নদী পাড়ের মানুষের মধ্যে বন্যার আশঙ্কায় হতাশা দেখা দিয়েছে।

ধরলা নদী অববাহিকার বাসিন্দা সেকেন্দার আলী জানান, আর কতো বন্যা হবে। তিনবার বন্যা হয়ে অনেক ক্ষতি হয়েছে। তিন চারদিন আগে পানি বেড়ে বন্যা দেখা দেয়। মনে করেছিলাম এটাই বুঝি শেষ বন্যা। বুধবার দিন থেকে আাবারও ধরলার পানি অনেক বাড়তেছে। এবার বন্যা হলে আমাদের এতো ক্ষতি সামলাব কি করে।   

এদিকে,পানি বেড়ে চর ও দ্বীপচরসহ নিম্নাঞ্চলসমূহ প্লাবিত হয়ে পড়েছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে বন্যায় জনজীবন আবারও মারাত্নক ক্ষতিতে পড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। অন্যদিকে, নদনদীর পানি কমা-বাড়ার মধ্যে জেলার কয়েকটি পয়েন্টে নদী ভাঙন চলছে। ঘরবাড়ি, ফসলি জমিসহ নানা স্থাপনা ইতোমধ্যেই নদীগর্ভে চলে গিয়ে শতশত মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে। এখন জেলার উলিপুর, রাজারহাট, ভুরুঙ্গামারী ও সদর উপজেলার বেশ কিছু পয়েন্টে নদী ভাঙন দেখা দেয়ায় সেখানকার মানুষজন কষ্টে দিনাতিপাত করছেন।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার সকালে ধরলা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমা অতিক্রম করছে। অন্যান্য নদ-নদীর পানিও বাড়ছে। তবে কয়েকদিন পানি আরও বাড়বে বলে তিনি জানান। 

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর