২৮ জুন, ২০২২ ১৯:৫৭

পরকীয়ার জেরে যুবকের দুই হাতের কব্জি কেটে নিলো ফুফা

নরসিংদী প্রতিনিধি

পরকীয়ার জেরে যুবকের দুই হাতের কব্জি কেটে নিলো ফুফা

নরসিংদীর পলাশে পারিবারিক কলহের জের ও চাচির সাথে পরকীয়ার কারণে হাদিউল মিয়া (২৫) নামে এক যুবকের দুই হাতের কব্জি কেটে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। হাদিউলের কথিত ফুফা ডাকাত জালাল মিয়া ও তার ভাতিজা সাজ্জাদ মিয়া দুই হাত কেটে প্রতিশোধ নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দিবাগত রাতে চারটার দিকে পলাশের নোয়াকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত হাদিউল নরসিংদীর শিবপুর থানার মোর্শেদ মিয়ার ছেলে। অভিযুক্ত জালাল মিয়া নোয়াকান্দা গ্রামের আক্কাছ মিয়ার ছেলে ও সম্পর্কে আহত হাদিউলের ফুফা। আরেক অভিযুক্ত সাজ্জাদ মিয়া অভিযুক্ত আক্কাছ মিয়ার ভাতিজা।

আহতের পরিবার ও পুলিশ জানায়, আহত হাদিউলের চাচা প্রবাসী হওয়ার কারণে হাদিউল আর তার চাচির মধ্যে পরকীয়ার সম্পর্ক হয়। এ নিয়ে প্রায় সময় হাদিউলের সাথে পরিবারের সদস্যদের ঝগড়া হতো। শুধু তাই নয়, এ নিয়ে হাদিউলের গ্রামের বাড়িতে সালিশও হয়েছিল। কিন্তু গত কিছুদিন আগে হাদিউল ও তার চাচির মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে হাদিউল তার চাচিকে মারধর করে। এতে করে তার চাচি বেশ কিছুদিন চিকিৎসাধীন।

এছাড়া হাদিউল কিছুদিন যাবত চাকরির খোঁজ করছিল। চাচির সাথে ঝগড়ার আগে হাদিউল তার ফুফার কাছে চাকরির খোঁজ করে। সোমবার সন্ধ্যায় তার ফুফা তাকে চাকরির কথা বলে তার নিজ বাড়ি নোয়াকান্দা গ্রামে নিয়ে যায়। সেখানে হাদিউল রাত কাটান। পরে ভোর ৪টার দিকে হাদিউলকে জানানো হয় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) বাড়িতে রেড করেছে। এই কথা বলে তাকে নোয়াকান্দা থেকে দড়িচরগামী রাস্তার মাঝে একটি কলাবাগানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে হাত-পা-মুখ বেঁধে তার দুই হাতের কব্জি কেটে দেয়। পরে ভোর বেলায় হাদিউলের চিৎকার শুনে এলাকার লোকজন তাকে উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে।

পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াছ বলেন, পরকীয়ার জেরে এ ঘটনার সূত্রপাত হতে পারে। এছাড়াও জালাল মিয়া একজন শীর্ষ ডাকাত দলের সদস্য। শেখ জালালের নামে থানায় একাধিক ডাকাতির মামলা রয়েছে। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। আহতকে উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে থানায় এখনো কেউ মামলা করেনি। থানায় মামলা হলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর