৪ অক্টোবর, ২০২২ ১৭:৫২
কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস

সার্ভার সমস্যার অজুহাতে মূল ফটকে তালা দিয়ে সকলেই উধাও!

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

সার্ভার সমস্যার অজুহাতে মূল ফটকে তালা দিয়ে সকলেই উধাও!

সার্ভারে সমস্যার অজুহাতে কিশোরগঞ্জের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের মূলফটকে তালাবদ্ধ করে উধাও হয়ে গেছেন কর্মকর্তাসহ সকলেই।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

অফিসের আশপাশের লোকজন জানান, সকাল ৮টায় কর্মকর্তারা এসেছিলেন ঠিকই। কিন্তু সার্ভারে সমস্যার কারণে কাজ করা সম্ভব হচ্ছে না বলে সাড়ে ৯টার দিকে চলে যান তারা। আর এ কারণে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে পাসপোর্ট করতে এবং সংগ্রহ করতে আসা শত শত লোক পড়েন ভোগান্তিতে।

এ বিষয়ে কথা বলতে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, সার্ভারে সমস্যা তাই কিছুই করার সুযোগ নেই। অন্যদিকে জেলা প্রশাসন বলছে সার্ভারে সমস্যা থাকলেও অফিস টাইম চলাকালীন সময়ে তালাবদ্ধ করার সুযোগ নেই। 

জেলার হাওর উপজেলা ইটনার ছিলনী গ্রাম থেকে পাসপোর্ট করতে এসেছিলেন মো. হাসিবুর রহমান। অফিসের সামনে গিয়ে দেখেন মূল ফটক তালাবদ্ধ। একই উপজেলার পাঁচকাহনীয়া গ্রাম থেকে পাসপোর্ট সক্রান্ত সমস্যায় অফিসে যোগাযোগ করতে এসেছিলেন মো. শাফিউল্লাহ। তালাবদ্ধ থাকায় তিনিও একই ভোগান্তির শিকার হন।

একই উপজেলার রায়টুটী এলাকার মো. শামসুর রহমান (৬৫) ওমরা হজ্বে যাওয়ার জন্য পাসপোর্ট করেছিলেন। তিনি বলেন, আজকে এসেছিলাম পাসপোর্ট নিতে, এসে দেখি কেউ নেই। অফিসের গেইটে তালা। 

ঢাকায় একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত তরিকুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি এসেছেন পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে। তার বাড়ি বাজিতপুর উপজেলায়। তিনি জানান, সার্ভারে সমস্যার কারণে পাসপোর্টটি সংগ্রহ করতে পারলাম না। বুধবার পূজার বন্ধ। একই কথা বলে অফিস থেকে বার বার ছুটি নেওয়াও সম্ভব নয়। এমন বিড়ম্বনায় পড়েছেন তার মতো অনেকেই। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয় একজন দোকানদার বলেন, আজকে শুধু সার্ভারের সমস্যার কারণে তিন থেকে চারশত লোক ঘুরে গেছে। তিনি বলেন, অন্যান্য দিন আমাদের দোকানে প্রচুর ভীড় থাকে। আজকে সকাল থেকেই একদম ফাঁকা।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মোরাদ চৌধুরীর মুঠোফোনে একাধিকবার কল করার পর রিসিভ করেন তিনি। তিনি জানান, আজকে সার্ভারে সমস্যা আপনি বৃহস্পতিবারে আসুন। সার্ভারে সমস্যা বলে অফিস বন্ধ থাকবে? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, আমাদের সকল কাজ তো অনলাইনে তাই সার্ভারে সমস্যা থাকলে সেগুলো করা সম্ভব হয় না। তাই বলে দিয়েছি অন্যদিন আসতে। 

সহকারী পরিচালকের সরকারি মোবাইল ফোনে কল করলে তিনি সহজে রিসিভ করেন না, এমনকি সপ্তাহে দু’দিনের বেশি অফিসেও আসেন না। কিছু দালালের মাধ্যমে অফিস নিয়ন্ত্রণ করেন বলে বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। 

কিশোরগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শামীম আলম বলেন, বিষয়টি আপনার মাধ্যমে জেনেছি। সার্ভারে সমস্যা থাকলেও অফিস চলাকালীন সময়ে তালাবদ্ধ করার সুযোগ নেই। আমি খোঁজ নিয়ে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলবো।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর