শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জুন, ২০১৯ ১৩:৩১
আপডেট : ২৪ জুন, ২০১৯ ১৩:৩৫

'আই অ্যাম অন ডিউটি'

শওগাত আলী সাগর

'আই অ্যাম অন ডিউটি'
শওগাত আলী সাগর

পুলিশের গাড়িটা এসে এলডন এভিনিউতে থামলো। অফিসার দু'জন গাড়ির ভেতরে বসেই মোবাইল ফোনে কিছু একটা দেখছেন। খানিকটা সময় নিয়ে ধীর পায়ে নেমে এলেন। ভলান্টিয়াররা যে তাবুটায় বসা সেখানে গিয়ে অনুষ্ঠানের হোস্ট এর সঙ্গে কথা বলতে চাইলেন। 

ডেনফোর্থের প্রাণকেন্দ্রে ঘরোয়া রেস্তারাঁর পার্কিং লটে বার বি কিউ পার্টি চলছে। স্কারবোরো সাউথওয়েস্ট এবং বিচেস ইস্ট ইয়র্ক এলাকার এমপি বিল ব্লেয়ার এবং নাথানিয়াল আরস্কিন স্মিথ এর সমর্থনে সামাজিক সমাবেশ এবং বার বি কিউ পার্টি। দু'জনেই ক্ষমতাসীন লিবারেল পার্টির এমপি। বিল ব্লেয়ার আবার ফেডারেল কেবিনেট মিনিস্টার। বিল ব্লেয়ার আসতে না পারলেও বাংলাদেশ কানাডা পার্লামেন্টারি ফ্রেন্ডস গ্রুপের প্রেসিডেন্ট নাথানিয়াল অনুষ্ঠানস্থলে হেঁটে হেঁটে সবার সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। বিল এবং নাথানিয়ালের ছবি দিয়ে বড় বড় বিলবোর্ড দিয়ে সাজানো অনুষ্ঠানস্থল। পুলিশ জানে এখানে কি হচ্ছে, কাদের অনুষ্ঠান এটি। কারো নিরাপত্তা দিতে যে তারা আসেনি সেটা তো পরিষ্কারই। মন্ত্রী-এমপিদের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ তাদের পেছনে পেছনে ঘুরে না এই দেশে। 

লিবারেল পার্টির নেতা সৈয়দ শামসুল আলম এবং কফিল উদ্দিন পারভেজ এগিয়ে এলেন। পুলিশ অফিসার দু'জন নিজেদের পরিচয় দিয়ে বললেন, ''নেইবারহুড থেকে কমপ্লেন করা হয়েছে- এখানে নয়েজ হচ্ছে, তারা ডিস্টার্ব ফিল করছেন। সে জন্য তারা এখানে এসেছেন।'' 

''তোমাদের কি মনে হচ্ছে এখানে কোনো ‘নয়েজ’ হচ্ছে?'' – আলম ভাই জানতে চাইলেন। ''নো, ইউ গাইজ আর অ্যাবসুলিউটলি ফাইন।'' আলম ভাই জানালেন, ''এইখানে আমরা ২৩ বছর ধরে নানা অনুষ্ঠান করি, কখনো কি কোনো ইনসিডেন্ট হয়েছে?''

পুলিশ অফিসার স্বীকার করলেন, তাদের রেকর্ডে কোনো ইনসিডেন্ট এর উল্লেখ নাই। নাথানিয়াল এমপি তখনো সেখানেই অভ্যাগতদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। তিনি পুলিশের দিকে ফিরেও তাকালেন না। পুলিশও ‘এমপি সাহেব’কে সালাম দেয়ার জন্য ছুটে গেলেন না। দু'পক্ষই নিজেদের কাজে ব্যস্ত।

পারভেজ ভাই আর আলম ভাই এর সঙ্গে কথা চালিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ অফিসার। বার বি কিউর দীর্ঘ লাইনকে সার্ভ করে যাচ্ছে লিবারেল পার্টির একনিষ্ঠ ভলান্টিয়াররা। এক ঝলক বাতাস যেন হঠাৎ করেই বারবি কিউ মেশিনে পুড়ানো চিকেনের ঘ্রাণ এনে ছড়িয়ে দিলো পুলিশের অফিসারের মুখে। একই সময়ে প্লেটে সাজিয়ে বন আর বার বি কিউ চিকেন এনে আমার হাতে তুলে দিলো লিবারেল ভলান্টিয়ার মার্জিয়া হক। সেদিকে তাকিয়ে অফিসারটি বলে উঠলেন, 'লুকস ডেলিসিয়াস'। আমি প্লেটটি অফিসারের দিকে বাড়িয়ে দিয়ে বলি- 'ইউ ক্যান ট্রাই।' ‘আই অ্যাম অন ডিউটি’… ফিস ফিস করে জবাব দেন অফিসার। 'মেক শিউর ইউ গাইজ ডোন্ট ব্লক দ্য রোড’ বলেই নিজেদের গাড়ির দিকে হাঁটতে শুরু করেন দুই অফিসার। আলম ভাই আর পারভেজ ভাই এর দিকে হাত নেড়ে ‘এনজয় গাইজ’ উইশ করে গাড়িতে চড়ে বসেন তারা। 

ঘটনাটা বাংলাদেশে হলে? ক্ষমতাসীন দলের এমপির অনুষ্ঠানে, এভাবে পুলিশ... বন্ধু আজিমের (চাকসুর জিএস আজিম উদ্দিন আহমেদ) সঙ্গে এ নিয়ে কথা তুলেও আমরা থেমে যাই। এইসব নিয়ে কোনো ধরনের আলোচনায় মগ্ন হওয়ার বদলে নাথানিয়ালের সঙ্গে ছবি তুলতে শুরু করি।

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

বিডি-প্রতিদিন/২৪ জুন, ২০১৯/মাহবুব


আপনার মন্তব্য