শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৩

ইরানকে আদালতে তোলার চেষ্টা পাঁচ দেশের বিক্ষোভ চলছেই

ট্রাম্পকে দুষলেন ট্রুডো

তানভীর আহমেদ

ইরানকে আদালতে তোলার চেষ্টা পাঁচ দেশের বিক্ষোভ চলছেই

ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে ইউক্রেনের যাত্রীবাহী বিমান ভূপাতিত করার দায়ে ইরানের বিচার দাবিতে আন্তর্জাতিক আদালতে যাচ্ছে পাঁচটি দেশ। সিঙ্গাপুর সফররত ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভাদিম প্রিসতাইকো এ তথ্য দেন। তবে কোন পাঁচটি দেশ তা তিনি খোলাসা করেননি। তিনি বলেন, ‘ওই বিমানের যাত্রী যারা মারা গেছেন, তাদের দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে আগামীকাল লন্ডনে বৈঠক হবে। বৈঠকে ইরানের বিরুদ্ধে কী আইনি পদক্ষেপ নেওয়া যায় তা নিয়েই আলোচনা হবে।’ ৮ জানুয়ারি ইউক্রেনীয় বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পেরও দায় আছে বলে মন্তব্য করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র উত্তেজনা উসকে না দিলে বিমানের যাত্রীরা আজও বেঁচে থাকতেন।’ এদিকে গত মঙ্গলবার রাতে (স্থানীয় সময়) ইরাকে মার্কিন সেনাদের লক্ষ্য করে দুটি সামরিক ঘাঁটিতে এক দফা ক্ষেপণাস্ত্রের হামলা হয়েছে। কেউ এ হামলার দায় স্বীকার না করলেও ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় এর বিচার চেয়েছে ওয়াশিংটন। তেহরানে ইউক্রেনের বিমান ভূপাতিত করার প্রতিবাদে গতকালও বিক্ষোভে উত্তাল ছিল ইরান। বিক্ষোভকারীরা দেশটির সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা খামেনি ও প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দিয়েছে।

কয়েকজন আটক : ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে ইউক্রেনীয় উড়োজাহাজ ভূপাতিত করার বিরুদ্ধে বাড়তে থাকা বিক্ষোভের মুখে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কয়েকজনকে আটক করেছে ইরান। গতকাল ইরানের বিচারবিভাগীয় মুখপাত্র গোলাম হুসেইন ইসমাইলি এ তথ্য দেন। বিপর্যয়ের ঘটনায় ভূমিকা থাকার অভিযোগে কয়েকজনকে এরই মধ্যে আটক করা হয়েছে। তবে ধৃত ব্যক্তিদের সংখ্যা বা পরিচয় তিনি দেননি। এদিকে, ‘বিশেষ আদালতের’ তদারকিতে এ তদন্ত চলবে বলে জানিয়েছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। মার্কিন ঘাঁটিতে ফের হামলা : গত রবিবার ও মঙ্গলবার ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে একাধিক রকেট হামলা হয়েছে। এই হামলাগুলোর দায় কেউ স্বীকার করেনি। হামলার পর ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে ওয়াশিংটন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের ওপর নতুন করে অর্থনৈতিক অবরোধের হুমকি দিয়েছেন। এর আগে ট্রাম্প এক বিবৃতিতে বলেন, ‘শীর্ষ সন্ত্রাসী সোলাইমানি অনেক মার্কিন নাগরিককে হত্যা করেছেন। এবার আমরা তাকে হত্যা করলাম।  বিক্ষোভ চলছে ইরানে : ইরানের বিভিন্ন শহরে গতকাল তৃতীয় দিনের মতো বিক্ষোভ হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা খামেনি-রুহানির পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দেয়। বিক্ষোভকারীরা বলছেন, ‘আমেরিকা নয়, দেশের ভিতরেই আমাদের শত্রু আছে।’ রয়টার্সের এক খবরে বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা ভিডিওতে দেখা যায়, তেহরানের আজাদি স্কয়ারে বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। তবে এসব ভিডিও ফুটেজের সত্যতা যাচাই করতে পারেনি রয়টার্স।  ট্রুডোর মতে দায় ট্রাম্পের : তেহরানে বিমানে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় নিহতের ঘটনায় এক সাক্ষাৎকারে কানাডার প্রেসিডেন্ট জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে এটা পরিষ্কার যে, একটি পরমাণু অস্ত্রবিহীন ইরান যেমন দরকার, তেমনি আঞ্চলিক উত্তেজনাও নিয়ন্ত্রণে রাখা উচিত।’ সাম্প্রতিক এই উত্তেজনা যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপের মাধ্যমেও ডেকে আনা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর