শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০
আপডেট : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০৯:২৯

গরুর খামারে কম্বল দান করলেই মিলবে বন্দুকের লাইসেন্স!

অনলাইন ডেস্ক

গরুর খামারে কম্বল দান করলেই মিলবে বন্দুকের লাইসেন্স!
প্রতীকী ছবি

কোনও আবেদনকারীকে বন্দুক লাইসেন্স দেওয়ার আগে আবেদনকারীর ব্যক্তিগত তথ্য ভালো করে খতিয়ে দেখে ভারতীয় প্রশাসন। সব রাজ্যের সব জেলায় নিয়ম এমনই। তবে সে সমস্ত নিয়ম পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারতের মধ্যপ্রদেশের একটি জেলার জেলাশাসক। কোনও গরুর খামারে (গোশালা) কমপক্ষে ১০টি কম্বল দান করলেই বন্দুকের লাইসেন্স দেওয়ার নতুন নিয়ম চালু করেছেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার থেকে এমনই আইন জারি করেছেন গোয়ালিয়রের জেলাশাসক অনুরাগ চৌধুরী। যেখানে বলা হয়েছে, বন্দুকের লাইসেন্সের জন্য আবেদনকারীকে জেলার কোনও গোশালায় অন্তত ১০টি কম্বল দান করলেই হবে। আর তা হলেই আত্মরক্ষার জন্য বন্দুকের লাইসেন্স পেয়ে যাবেন তিনি। প্রয়োজন হবে না অন্য কোনও সরকারি ছাড়পত্র।

সরকারি এই নির্দেশিকা নিয়ে স্বভাবতই হইচই পড়ে গেছে ভারতে। যার জেরে এমন আজব সিদ্ধান্ত নিয়ে ব্যখ্যা দিতে হয়েছে গোয়ালিয়রের জেলাশাসককে। তার বক্তব্য, বন্দুকের লাইসেন্সের জন্য গোশালায় কম্বল দানের নিয়মে পরিবেশের উপকার হবে। একইসঙ্গে সাধারণ মানুষের মধ্যে গড়ে উঠবে সচেতনতা। যা সামগ্রিকভাবে সমাজে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে বলে দাবি ওই আমলার।

বন্দুকের লাইসেন্স দেওয়ার আজব আজব নিয়ম চালু করে এর আগেও একাধিকবার খবরের শিরোনামে এসেছেন অনুরাগ চৌধুরী। এর আগে, বৃক্ষরোপন ও সেগুলোর যত্ন করলে বন্দুকের লাইসেন্স অনুমোদনের তার একটি নির্দেশিকা ঘিরে শোরগোল পড়ে। চলতি মাসের শুরুর দিকে রাজ্যে 'কাউ সাফারি'র প্রস্তাব দিয়েছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। রাজ্যের গোশালাগুলি আর্থিকভাবে লাভজনক করে তুলতে এমনই প্রস্তাব দিয়েছিলেন তিনি। চলতি আর্থিক বছরের বাজেটে রাজ্যে গোশালা তৈরি এবং সেগুলোর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে যোগী সরকার। সূত্র : এই সময়।

বিডি-প্রতিদিন/শফিক


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর
close