৩ আগস্ট, ২০২১ ১৬:৩১

ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টিকে অনুসরণ করার নির্দেশনা শি জিনপিংয়ের

অনলাইন ডেস্ক

ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টিকে অনুসরণ করার নির্দেশনা শি জিনপিংয়ের

সম্প্রতি তিব্বত সফর করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। সেখানকার বাসিন্দাদের তিনি দেশটির ক্ষমতাসীন চীনা কমিউনিস্ট পার্টিকে অনুসরণ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। এসময় তিনি জাতিগত সম্প্রীতি প্রচার এবং তিব্বতের বৌদ্ধধর্মকে সক্রিয়ভাবে একটি সমাজতান্ত্রিক সমাজের সাথে খাপ খাইয়ে নেওয়ার নির্দেশনাও দিয়েছেন।

জানা যায়, গত ২১ ও ২২ জুলাই তিব্বত সফর করেছেন শি। জাতিগত সম্প্রীতি সৃষ্টির লক্ষ্যে তার নেওয়া পদক্ষেপগুলোর নানাভাবে সমালোচনা করে আসছে পশ্চিমা রাষ্ট্রগুলো। বিশেষ করে উইঘুরদের মুসলিমদের প্রতি তার সিদ্ধান্তগুলো সবচেয়ে বেশি নজরে এসেছে বিশ্বনেতাদের।

তিব্বতের প্রাদেশিক কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে শি বলেন, তিব্বতের পরিচিত বৃদ্ধি করতে হবে। তবে তা হবে চীনের মূল ভূখণ্ড ও নীতির সঙ্গে সামজঞ্জস্যপূর্ণ। সেইসঙ্গে চীনের সংস্কৃতি, চীনা কমিউনিস্ট পার্টি ও সমাজতান্ত্রিক সমাজের সাথে খাপ খাইয়ে তিব্বতকে উন্নত করতে হবে। সেই লক্ষ্য সফল হলে নবজীবন পাবে চীন।

গত তিন দশকে এই প্রথম কোনো চীনা প্রেসিডেন্ট তিব্বত সফরে গেল। বিশেষ করে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনাদের সরিয়ে নেওয়ায় নতুন করে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে পড়েছে চীন। যার কারণে বেশ গুরুত্ব দিয়েই তিব্বতে গিয়েছেন শি বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, ভারতের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধিতা চলে আসছে চীনের। তার সীমান্তে নিরাপত্তা এখন শি জিনপিংয়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তিব্বত সফর মূলত ভারতের প্রতি একটি বার্তা পৌঁছানো। এছাড়া চীনের সীমান্ত এলাকায় ছড়িয়ে থাকা উপজাতি ও সংখ্যালঘু মানুষদের একত্রে করার চেষ্টা করছে চীনা সরকার। যাতে তারা ভেদাভেদ ভুলে চীনা জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী হয়ে উঠে।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর