শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ জুন, ২০২১ ২৩:৫৫

টিকা নিতেই ‘ম্যাগনেটম্যান’ হয়ে গেলেন দুই প্রৌঢ়

Google News

করোনার টিকায় কি রয়েছে চৌম্বক শক্তি? পরপর দুটি ঘটনায় এ প্রশ্ন উঠেছে। প্রথম ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মহারাষ্ট্রের নাসিকে, আর দ্বিতীয়টি ঘটেছে পশ্চিম বাংলার শিলিগুড়িতে। দেখা গেছে, করোনার টিকা নেওয়ার পরই দেশের দুই প্রান্তে দুই প্রৌঢ়ের শরীরে তৈরি হয়েছে চুম্বক ক্ষেত্র। লোহা, স্টিলের জিনিসপত্র সবই আটকে যাচ্ছে তাদের শরীরে। ভারতীয় গণমাধ্যম। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী, এই ঘটনা ঘটার পর শিলিগুড়ির ফুলেশ্বরীতে ‘ম্যাগনেটম্যান’কে দেখতে ভিড় জমে থাকছে। কোনো শারীরিক অসুস্থতা না থাকা সত্ত্বেও কীভাবে মানব শরীর চুম্বক হয়ে গেল- তা বুঝতে ওই প্রৌঢ়কে এখন শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়েছে। জানা গেছে, তার নাম নেপাল চক্রবর্তী, বয়স ৫৮ বছর। শিলিগুড়ির ফুলেশ্বরীর বাড়িতে তিনি একাই থাকেন। স্ত্রীবিয়োগ হয়েছে আগেই। গত ৭ জুন করোনার টিকা নেন তিনি। সব ঠিকই ছিল, কোনো সমস্যাও হয়নি। দিন কয়েক পর তিনি টিভির খবরে দেখেন যে, করোনার টিকা নিয়ে মহারাষ্ট্রের এক প্রৌঢ়ের শরীরে চৌম্বকীয় শক্তি তৈরি হয়েছে।

ধর্ম অনুযায়ী, বিভিন্ন ধাতব বস্তুকে তা আকর্ষণ করছে। দাঁড়িয়ে থাকা মানুষের শরীরে দিব্যি আটকে রয়েছে হাতা, খুন্তি, চামচ, পয়সা। নেপাল জানান, ওই খবরটি দেখার পর তার নিজেকে পরীক্ষা করে দেখার ইচ্ছা হয়। তখন তিনি পয়সা আটকে দেখেন। কিন্তু পয়সাটি পড়ে যায়নি। তারপর একে একে আরও বিভিন্ন ধাতব বস্তু নিয়ে পরীক্ষা করেন। দেখা যায়, সেসবই আটকে থাকছে তার শরীরে। ১১ জুন থেকে এমনই চলছে।

নেপাল আরও জানান, তার শরীরে এভাবেই চুম্বকে বদলে গেছে। আবশ্য তাতে আলাদা কোনো শারীরিক সমস্যাই হচ্ছে না। দিব্যি সুস্থ আছেন তিনি। তা সত্ত্বেও তাকে শিলিগুড়ি জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

খবরে বলা হয়, এর আগে গত ১০ জুন নাসিকে এক প্রৌঢ়ের শরীরেও ঠিক একই রকমভাবে চৌম্বক শক্তি তৈরি হয়েছিল করোনার ভ্যাকসিন নেওয়ার পর। গোড়ার দিকে বাড়ির লোকজনের কাছে এই ঘটনা অবিশ্বাস্য ঠেকছিল। তারা মনে করেছিলেন, হয়তো ঘর্মাক্ত শরীরে আটকে যাচ্ছে থালা-চামচগুলো। কিন্তু দেখা যায়, ওই ব্যক্তি গোসল করার পর শুকনো শরীরেও একই ম্যাজিক!