শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ মে, ২০২১ ২৩:৪২

সিলেটে সংঘর্ষ গুলিতে নিহত স্কুলছাত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

কৃষি জমি থেকে জোর করে মাটি কাটাকে কেন্দ্র করে সিলেটের বিশ্বনাথে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। এ ছাড়াও গুলিবিদ্ধ হয়েছেন এক প্রবাসীসহ চারজন। এ ঘটনায় পুলিশ চারজনকে আটক করেছে। শনিবার বিকালে উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের চৈতননগর গ্রামের সাইফুল আলম ও নজির উদ্দিনের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষের এই ঘটনা ঘটে। নিহত সুমেল আহমদ শুকুর (১৭) ওই গ্রামের মানিক উদ্দিনের ছেলে ও নজির উদ্দিনের ভাতিজা। সে স্থানীয় শাহজালাল (রহ.) উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

গুলিবিদ্ধ চারজন নজির উদ্দিন, তার ভাই যুক্তরাজ্য প্রবাসী মনির উদ্দিন ও মানিক উদ্দিন এবং সালেহ আহমদ। গুলিবিদ্ধ চারজনই নজির উদ্দিনের লোক। তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকালে উপজেলার ‘চৈতননগর-ইসলামপুর-টুকেরবাজার সড়ক’ ভরাটের জন্য নজির উদ্দিনের কৃষি জমি থেকে জোর করে প্রবাসী সাইফুল আলমের লোকজন মাটি কাটা শুরু করে। এসময় নজির উদ্দিনের লোকজন বাধা দিলে বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়ায়। সংঘর্ষ চলাকালে নজির উদ্দিনসহ তার পক্ষের পাঁচজন গুলিবিদ্ধ হন। এর মধ্যে সুমেল আহমদ শুকুর মারা যায়। এদিকে, গতকাল ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে নিহত সুমেলের লাশ হস্তান্তর করা হয়। বিকালে জানাজা শেষে দাফন করা হয়। গুলিবিদ্ধ নজির উদ্দিন জানান, ‘আমাদের কৃষি জমি থেকে সাইফুল জোর করে মাটি কাটতে গেলে আমরা বাধা দেই। এসময় সাইফুল তার হাতে থাকা আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে গুলি করে। সাইফুলের করা গুলিতে সুমেল মারা যায়। গুলিবিদ্ধ হন আরও চারজন।’ এ ব্যাপারে সাইফুল আলম বলেন, ‘এলাকার মুরব্বীদের দেওয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সড়কের মাটি কাটতে গেলে নজির উদ্দিনের লোকজন হামলা করে। হামলায় আমাদের পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।’ বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা জানান, হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের পরিবার মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে। তবে গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত তারা থানায় লিখিত অভিযোগ জমা দেয়নি। হত্যাকান্ডের ঘটনায় পুলিশ চারজনকে আটক করেছে। গতকাল তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।