বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

ঘুম থেকে ডেকে মাদরাসাছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রংপুরের বদরগঞ্জে বিয়ের দিন সকালে ঘুম থেকে ডেকে তুলে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে তারমিনা আক্তার ওরফে ফুলতি (১৪) নামে এক শিক্ষার্থীকে। গতকাল ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ঘটনাটি ঘটে উপজেলার লোহানীপাড়া ইউনিয়নের সাজনা এলাকায়। তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। তারমিনা লোহানীপাড়া দাখিল মাদরাসার নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাবার নাম তোয়াব আলী। এ ঘটনায় বদরগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার পরপরই অভিযুক্ত শাখাওয়াত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়।

হাসপাতাল ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বদরগঞ্জ উপজেলার পাশর্^বর্তী মিঠাপুকুর উপজেলার বড়বালা ইউনিয়নের পশ্চিম বড়বালা এলাকায় তারমিনা আক্তারের বড় বোন তহমিনার বিয়ে  হয়। আত্মীয়তার সম্পর্কে পরিচিত ওই এলাকার মোনায়েম হোসেনের ছেলে শাখাওয়াত (১৬) প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে তারমিনাকে নানাভাবে বিরক্ত করত। এর মধ্যে গতকাল তারমিনা আক্তারের বিয়ে ঠিক হয় লোহানীপাড়া ইউনিয়নের গাছুয়াপাড়া এলাকায় আবু সাইদের ছেলে সাকিরুল ইসলামের সঙ্গে। এ ঘটনা জানতে পেরে শাখাওয়াত হোসেন ক্ষিপ্ত হয় তারমিনার ওপর। একপর্যায়ে ভোরে মোটরসাইকেলে নিজ বাড়ি থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে তারমিনার বাড়িতে আসে শাখাওয়াত। তখন সবার অজান্তে ঘুমন্ত তারমিনাকে ডেকে দরজার কাছে নিয়ে ছুরি দিয়ে দুই পা, মুখ, কপাল ও পাজরে উপর্যুপরি আঘাত করে। তারমিনা চিৎকার দিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে বাড়ির লোকজন তাকে উদ্ধার করে। আশপাশের লোকজন ছুটে এসে শাখাওয়াত হোসেনকে ধাওয়া করে। মোটরসাইকেল নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায় সে। পরে তারমিনাকে গুরুতর আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সেখানে সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। বদরগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তাদের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে। মেয়েটি বর্তমানে আশঙ্কামুক্ত। লোহানীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাকিব হাসান ডলু শাহ্ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মেয়েটির পরিবারকে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।