বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

ফ্রি ফায়ার গেম খেলা নিয়ে বিরোধে স্কুলছাত্র খুন

মাগুরা প্রতিনিধি

মাগুরায় মোবাইলের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ফ্রি ফায়ার গেম খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে বন্ধুদের ছুরিকাঘাতে খুন হলো কাজী গোলাম রসুল (১৫) নামে এক স্কুলছাত্র। প্রতিপক্ষ মঙ্গলবার রাতে মাগুরা সদর উপজেলার বেরইলপলিতা গ্রামের দক্ষিণপাড়ায় ছুরিকাঘাতে এ হত্যাকান্ড ঘটনা ঘটায়।

নিহত কাজী গোলাম রসুল বেরইলপলিতা গ্রামের কাজী রওনক হোসেনের ছেলে। সে গঙ্গারামপুর কালীপ্রসন্ন কারিগরি বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় গতকাল সকালে নিহতের বাবা কাজী রওনক হোসেন বাদী হয়ে ছয়জনের নামে মাগুরা সদর থানায় মামলা করেছেন। স্থানীয় বেরইলপলিতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান খোন্দকার মহব্বত আলী জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বেরইলপলিতা দক্ষিণপাড়া এলাকার রাস্তা দিয়ে গোলাম রসুল নিজ বাড়ির দিকে আসছিল। এ সময় হত্যাকারীরা তাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন রসুলকে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করে মাগুরা ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয় বাজারে চা বিক্রেতা কাজী রওনক হোসেনের দুই মেয়ে ও এক ছেলের মধ্যে রসুল ছিল সবার ছোট। নিহতের বোন লিপি পারভীন অভিযোগ করেন, একই এলাকার শহিদুল মিয়ার ছেলে দশম শ্রেণির ছাত্র সজীব মিয়ার সঙ্গে এক সপ্তাহ আগে গোলাম রসুলের মোবাইলে গেম খেলা নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর থেকেই রসুলকে সজীব নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছিল। এরই জের ধরে তাকে খুন করা হয়েছে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডাক্তার এনামুল কবির জানান, হাসপাতালে আনার আগেই গোলাম রসুলের মৃত্যু হয়। বুকের মাঝে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে প্রচুর রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

মাগুরা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জয়নুল আবেদীন  জানান, অনলাইনে ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেম খেলা নিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে গতকাল সকালে নিহতের বাবা কাজী রওনক হোসেন সজীবসহ ছয়জনের নামে থানায় মামলা করেছেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতারে পুলিশি অভিযান চলছে।