মঙ্গলবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২২ ০০:০০ টা

চার দিন পর লাশ ফেরত দিল বিএসএফ

দিনাজপুর প্রতিনিধি

পতাকা বৈঠকের পর দিনাজপুর সদরের সীমান্তের ওপারে গুলিতে নিহত মিনহাজুল ইসলাম মিনাজের লাশ চার দিন পর ফেরত দিয়েছে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষীবাহিনী (বিএসএফ)। পরে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয় মিনাজের লাশ। গতকাল বাদ মাগরিব নামাজে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

এর আগে গতকাল বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে দিনাজপুর সীমান্তের ৩১৪/৭ এস পিলারের কাছে বিজিবি-বিএসএফের পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে লাশ ফেরত দেওয়া হয়।

পতাকা বৈঠকে দাইনুর বিওপির নায়েক সুবেদার আক্তার হোসেন, কোম্পানি কমান্ডার আনিস হোসেন, কোতোয়ালি থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম, আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবুবক্কর সিদ্দিক,  ইউপি সদস্য মাজেদুর রহমান ও নিহতের পিতা জাহাঙ্গীর হোসেন উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে ভারতের পশ্চিম দিনাজপুরের ভাদড়া হরিপুর সীমান্ত ফাঁড়ির বিএসএফ কর্মকর্তা ঈসা, গঙ্গারামপুর থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) পল্লব কুমারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

লাশ ফেরতের বিষয়টি নিশ্চিত করে আস্করপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুবক্কর সিদ্দিক ও ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মাজেদুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, সকালে লাশ ফেরত দেওয়া হবে সংবাদ পেয়ে কবর খনন করা হয়। বিকালে লাশ বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে গোসল শেষে বাদ মাগরিব জানাজা হয়। পরে পারিবারিক গোরস্থানে তার দাফন করা হয়।

লাশ ফেরতের বিষয়টি নিশ্চিত করে দিনাজপুর কোতোয়ালি থানার ওসি তানভিরুল ইসলাম বলেন, বিএসএফ ও বিজিবির উপস্থিতিতে নিহতের লাশ আমাদের কাছে (পুলিশের কাছে) হস্তান্তর করা হয়েছে। যেহেতু ওই দেশে ময়নাতদন্ত হয়েছে, তাই এ দেশে তা আর প্রয়োজন হবে না। লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার দিবাগত রাত ১১টার দিকে দিনাজপুর সদরের দাইনুর সীমান্তের ওপারে মিনহাজুল ইসলাম নিহত হয়। অভিযোগ ওঠে, বিএসএফের করা গুলিতে সে মারা যায়। মিনহাজুল ইসলাম সদর উপজেলার আস্করপুর ইউনিয়নের ভিতরপাড়া এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। খানপুর উচ্চবিদ্যালয়ের নবম শ্রেণিতে পড়ালেখা করত সে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর