শিরোনাম
প্রকাশ : ৮ এপ্রিল, ২০২০ ২১:১৬

পূর্ব লন্ডনে ওল্ড কেয়ার হোমে করোনায় বাংলাদেশিসহ ৭ জনের মৃত্যু

যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি

পূর্ব লন্ডনে ওল্ড কেয়ার হোমে করোনায় বাংলাদেশিসহ ৭ জনের মৃত্যু
ওল্ড কেয়ার হোমে মারা যাওয়া বাংলাদেশি জমসেদ আলী

বাংলাদেশি ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা পূর্ব লন্ডনের একটি ওল্ড কেয়ার হোমে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশিসহ ৭ জন মারা গেছেন। এছাড়া স্ট্যাপলীগ্রীনের হাউথর্ন গ্রীন হোমের ২১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস সংক্রমিত হয়েছে বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বিবিসি। 

এই কেয়ার হোমে মোট ৪৮ জন বয়স্ক মানুষ থাকেন। অন্তত ১২ জন স্টাফ সেলফ আইসোলেশনে চলে গেছেন।

মারা যাওয়াদের মধ্যে কে কোন দেশের তা বলা না হলেও ধারণা করা হচ্ছে বেশীরভাগই ব্রিটিশ বাংলাদেশি মারা গেছেন।

সরকারের হেলথ কেয়ার ডিপার্টমেন্ট বলছে, ২৪ ঘণ্টাই সোশিয়াল কেয়ার কর্মীরা কাজ করে যাচ্ছে পরিস্থিতি সামাল দিতে। যারা মারা গেছেন তাদের জন্য আমরা অনুতপ্ত।

মারা যাওয়া ৭ জনের মধ্যে জামসেদ আলী নামে ৮৭ বছরের বয়স্ক ব্রিটিশ বাংলাদেশিও রয়েছেন। তিনি ১৯৬২ সালে বাংলাদেশ থেকে ব্রিটেনে আসেন এবং দর্জি হিসাবে বিখ্যাত ব্রান্ডেড কোম্পানী বারবেরীতে কাজ করতেন। তিনি গত ২৪ মার্চ পূর্ব লন্ডনের রয়েল লন্ডন হাসপাতালের মারা যান।
তিনি গত তিন বছর ধরে পূর্ব লন্ডনের হাউথর্ন হোম কেয়ারের বাসিন্দা ছিলেন।

জামসেদ আলীর কন্যা লুতফা হুড স্থানীয় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, আমরা জানতাম এই ভাইরাস বাবাকে ধরলে তিনি আর বাঁচবেন না। কেয়ার হোম নিরাপদ না জানলে হাসপাতাল থেকে যখন তিনি ছাড়া পেয়েছিলেন উনারে সেখানে ফিরে যেতে দিতাম না।

তিনি ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের এইসব ওল্ড কেয়ার হোমে থাকা বাসিন্দাদের জন্য আরও বেশি করে টেষ্ট ফ্যাসিলিট নিশ্চিত করা উচিত বলে মনে করেন জমসেদ আলীর শোকাহত কন্যা লুতফা।

পূর্ব লন্ডনের বার্কিং ও ড্যাগেনহাম এমপি নার্গারেট হডজ সরকারের কাছে তার আসনের কেয়ার হোম ও কেয়ার সেন্টারে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামের স্বল্পতার সমাধান চেয়ে চিঠি লিখেছেন।

তিনি লিখেছেন, আমি স্তম্ভিত যখন শুনেছি কেয়ার ওয়ার্কারদের নাকি বাধ্য করা হচ্ছে একই এপ্রোন ও ফেইস মাস্ক বারবার ধুয়ে পড়ার জন্য। কিছু কিছু কেয়ার সেন্টারে কোনো মাস্ক বা হ্যান্ডস গ্লাভস নেই।

হেলথ কেয়ার ডিপার্টমেন্টের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, তারা ব্রিটেনের ২৬ হাজার কেয়ার হোমে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম পাঠিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য