Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২৩:৪০
লাক্স সুন্দরীদের হালচাল
‘লাক্স তারকা’ পরিচয়টি আমাদের শোবিজ অঙ্গনে খুবই পরিচিত এবং বিশেষ সম্মানের। নিয়মিতভাবেই এই আয়োজন হয়ে থাকে। আর এ নিয়ে প্রতিযোগীদের মধ্যে বিরাজ করে উত্তেজনা। সারা দেশেই ব্যাপক সাড়া পড়ে। কিন্তু বিগত বছরগুলোতে যারা সেরা নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের খবর কী। লাক্স সুন্দরীদের হালচাল নিয়েই আজকের প্রতিবেদন—
লাক্স সুন্দরীদের হালচাল
জাকিয়া বারী মম

জাকিয়া বারী মম

 

লাক্স সুন্দরীদের মধ্যে যারা এখন দাপিয়ে কাজ করছেন তাদের মধ্যে অন্যতম জাকিয়া বারী মম। এই মেধাবী অভিনেত্রী বড়ই হয়েছেন সাংস্কৃতিক আবহে। তাই তার স্বপ্নও ছিল শোবিজ অঙ্গনে কাজ করার। সেই স্বপ্ন নিয়ে নাম লেখান প্রতিযোগিতায়। ২০০৬ সালে জিতে নেন লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতার সেরার মুকুট। মজার বিষয় হলো— ২০০৬ সালেই ঘোষণা দেওয়া হয় সেরা সুন্দরী হুমায়ূন আহমেদের চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পাবেন। তাই স্বপ্ন যেন আরও ডালপালা মেলতে শুরু করে। অবশেষে তিনিই সেরা হন। আর সুযোগ পান ‘দারুচিনি দ্বীপ’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের। স্বপ্ন পূরণ হয়। এরপর আর থেমে থাকেননি মম। নিয়মিত অভিনয় করে গেছেন। বর্তমানে তিনি জনপ্রিয় অভিনেত্রীদের একজন। ছোটপর্দা তো বটেই বড়পর্দায়ও তিনি জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। তার অভিনীত শেষ ছবি ‘ছুঁয়ে দিলে মন’ ব্যাপকভাবে সফল হয়। সেই সঙ্গে মমও।

অভিনয়ে ঝোঁকের আরও একটি কারণ, মম পড়াশোনাও করেছেন একই বিষয়ে। তিনি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নাট্যকলায় উচ্চশিক্ষা নিয়েছেন।

 

 

বিদ্যা সিনহা মিম

শুরু থেকেই দর্শক-নির্মাতার আগ্রহে পরিণত হন ২০০৭ সালের লাক্স-চ্যানেল আই সুন্দরী বিদ্যা সিনহা মিম। বিজয়ী হওয়ার পর হুমায়ূন আহমেদের ‘আমার আছে জল’ ছবিতে অভিনয় করে সেরা অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কার জয় করেন। এ ছাড়া ২০০৯ সালেও তিনি সেরা অভিনেত্রীর মনোনয়ন পেয়েছিলেন।

একই সঙ্গে দর্শকের মনে স্থায়ী আসন গড়ে নেন। শুধু বড়পর্দা নয়, বিজ্ঞাপন ও নাটকেও রয়েছে তার সমান দর্শকপ্রিয়তা। বর্তমানে নাটকের চেয়ে চলচ্চিত্রকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন এই লাক্স সুন্দরী। বাণিজ্যিক ও মৌলিক— দুই ধারা ছবিতেই কারিশমা দেখিয়েছেন তিনি। শাকিব খানের সঙ্গেও জুটি বেঁধে কাজ করেছেন ‘আমার প্রাণের প্রিয়া’ ছবিতে। এ ছবিতে তার অভিনয় প্রশংসা পায় এবং ছবিটি সফল হয়। এবারের ভ্যালেন্টাইন ডেতে মুক্তি পাচ্ছে মিম অভিনীত ছবি ‘সুইটহার্ট’। এতে এই প্রজন্মের আলোচিত নায়ক বাপ্পি ও আগের প্রজন্মের অভিনেতা রিয়াজের সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন তিনি। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ওপার বাংলাতেও বড়পর্দায় ডাক পেয়েছেন এই সুন্দরী অভিনেত্রী। যৌথ প্রযোজনার ছবিতেও কাজ করা হয়েছে তার। ‘ব্ল্যাক’ শিরোনামের এই ছবিতে তার নায়ক ছিলেন টালিগঞ্জের জনপ্রিয় মুখ সোহম। মিম ছোট আর বড়পর্দায় বেছে কাজ করার পক্ষে। দর্শকপ্রিয়তা অক্ষুণ্ন রেখে ভালো কাজ দিয়ে শোবিজ জগতে উজ্জ্বল নক্ষত্র হয়ে থাকতে চান লাক্স সুন্দরী মিম। সে লক্ষ্যেই

মেপে আর হিসাব করে তার পথচলা। এতে দর্শকও তার প্রতি সন্তুষ্ট।

 

 

ইশরাত জাহান চৈতী

২০০৮ সালের লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ইশরাত জাহান চৈতী অনেকটা ধীরগতিতে এগোচ্ছেন বলা চলে। নাটক ও চলচ্চিত্রে কাজ করলেও চৈতীর ছিল গান-বাজনার শখ। গাইতেন নজরুলসংগীত। লাক্স সুন্দরী হওয়ার পর গায়িকা চৈতী অভিনয়ের প্রতি ঝুঁকে পড়েন। শান্ত-মারিয়ম ইউনিভার্সিটিতে ফ্যাশন ডিজাইনপড়ুয়া চৈতী এর মধ্যে একটি মিক্সড অ্যালবামের দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। চৈতী অভিনীত চলচ্চিত্রের মধ্যে রয়েছে শাহজাহান চৌধুরী পরিচালিত ‘মধুমতি’ এবং নাটকের মধ্যে রয়েছে ‘জীবন সংসার’, ‘প্রতিপক্ষ’ এবং ‘খ-ও’। বর্তমানে সংসার নিয়ে বেশি সময় কাটছে চৈতীর।

 

 

মেহজাবিন চৌধুরী

লাক্স সুন্দরী মেহজাবিনের মধ্যে শুরু থেকেই সম্ভাবনা দেখতে পান নির্মাতারা। দর্শকও তাকে পছন্দ করেন। কিন্তু এত কিছুর পরও মিডিয়ায় তার নিয়মিত উপস্থিতি পাওয়া যাচ্ছে না। ২০০৯ সালে প্রায় ১০ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে সেরা সুন্দরী নির্বাচিত হন মেহজাবিন চৌধুরী। এরপর নাটক, বিজ্ঞাপনে কাজ করে দর্শকদের প্রিয়মুখ হন তিনি। এ পর্যন্ত এক ডজনেরও বেশি নাটকে কাজ করেছেন তিনি। তবে চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন কম। স্বপন আহমেদের পরিচালনায় কল্পকাহিনী নির্ভর চলচ্চিত্র ‘পরবাসিনী’তে প্রথম কাজ করেন মেহজাবিন। এখনো নাটকেই কাজ করছেন বেশি। পাশাপাশি বিজ্ঞাপনেও রয়েছে তার উপস্থিতি। মেহজাবিন বলেন, মানসম্মত গল্প পেলে ছবিতে নিয়মিত কাজ করতে আপত্তি নেই তার।

 

 

মাহবুবা ইসলাম রাখি

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার ২০১০-এর মুকুট বিজয়ী মাহবুবা ইসলাম রাখি। তিনি একাধারে মডেল এবং অভিনেত্রী। ছোটবেলা থেকেই মডেলিং ও অভিনয়ের প্রতি রাখির ঝোঁক ছিল। রাখির প্রিয় ঋতু বসন্ত আর শখ নানা মজাদার বিষয়ের ওপর প্রকাশিত আর্টিকেল কেটে কেটে নোটবুকে জমা করা। নাচ, গান, ছবি আঁকার প্রতিও ছোটবেলা থেকেই রাখির ঝোঁক রয়েছে। মিডিয়ার প্রতি অদম্য টান থাকা সত্ত্বেও পড়াশোনার কারণে নিয়মিত ব্যস্ত হতে পারেননি তিনি। কয়েকটি বিজ্ঞাপনচিত্র ও নাটকে কাজ করেছেন রাখি। তবে সহসাই অভিনয়ে নিয়মিত হওয়ার ইচ্ছা আছে এই লাক্স সুন্দরীর।

 

 

নাদিয়া আফরীন মীম

লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতা-২০১৪ এর সেরার মুকুট মাথায় পরলেন নাদিয়া। তিনি অল্প অল্প কাজ করছেন মিডিয়াতে। পড়াশোনা নিয়েই বেশি সময় কাটছে তার। তবে দ্রুত অভিনয়ে নিয়মিত হতে চান তিনি।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow