২৫ ডিসেম্বর, ২০২৩ ১৯:০১

হলুদে ছেয়ে গেছে মাঠ

বেনাপোল প্রতিনিধি

হলুদে ছেয়ে গেছে মাঠ

সরিষার হলুদ ফুলে ছেয়ে গেছে দিগন্তজোড়া ফসলের মাঠ। ফুলে ফুলে মৌমাছির গুঞ্জন। ভালো ফলনের আশা চাষিদের। চলতি মৌসুমে যশোরের শার্শা উপজেলায় রেকর্ড পরিমাণ জমিতে সরিষা আবাদ হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূল থাকলে এবার প্রত্যেক সরিষা চাষি লাভবান হবেন বলে মনে করছে উপজেলা কৃষিবিভাগ।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর জানায়, শার্শার মাটি সরিষা চাষের জন্য খুবই উপযোগী। চলতি মৌসুমে ১১টি ইউনিয়নে ১ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় যা গতবারের চেয়ে ২০০ হেক্টর বেশি। উপজেলার শ্যামলাগাছি গ্রামের চাষি নজরুল ইসলাম জানান, এ বছর দুই বিঘা জমিতে বারি-১৪ ও বিনা-৯/১০ জাতের সরিষা আবাদ করেছি। বিঘাপ্রতি প্রায় ৩-৪ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। গাছে ফল ভালো এসেছে। আশা করছি, বাম্পার ফলন হবে। দামও বেশি পাব। সরিষার জমিতে ধানের আবাদও ভালো হয় এবং বোরো চাষে খরচ কম পড়ে।

শার্শা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সৌতম কুমার শীল জানান, কৃষকদের যথাযথ পরামর্শ ও পরিচর্যার বিষয়ে দিক নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। বারি-১৪সহ অন্য জাতের সরিষা বপনের মাত্র ৭৫-৮০ দিনের মধ্যে ফলন পাওয়া যায়। সরিষা তুলে ফের বোরো আবাদ করতে পারেন বলে এটাকে কৃষকরা লাভের ফসল হিসেবে অভিহিত করে থাকেন।

সর্বশেষ খবর