Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:১১

ঢাবিতে 'দুর্নীতির ভূত' তাড়ালেন 'ওঝা'রা

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

ঢাবিতে 'দুর্নীতির ভূত' তাড়ালেন 'ওঝা'রা

পরনে কালো ধুতি, গায়ে লাল কাপড় জড়ানো, হাতে ঝাড়ু। বিচিত্র দেখতে দুই ব্যক্তি চারদিকে ঘুরে ঘুরে তাড়াচ্ছেন ভূত। হাতের ঝাড়ুটি চারপাশে নাচিয়ে বেড়াচ্ছেন। এই ভূত কল্পকথার কোন ভূত নয়, বরং দুনীতির ভূত। ওঝা সেজে দুর্নীতির ভূত দূর করতেই এমন আয়োজন।

এমনই অভিনব প্রতিবাদ হয়ে গেলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়’ মূলমন্ত্রকে সামনে রেখে সংগঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটি ছাত্র সংগঠনের নেতাকর্মীদের উদ্যোগে রবিবার দুপুরে এই ‘ভূত তাড়ানোর’ আয়োজন করা হয়। নাম দেওয়া হয় ‘দুর্নীতির ভূত তাড়াবো’।  দুপুর জুড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি, কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার প্রাঙ্গন, অপরাজেয় বাংলা, ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, উপাচার্য ভবনসহ ক্যাম্পাসের বিভিন্ন জায়গায় চলতে থাকে ব্যতিক্রমী এই আয়োজন। 

সম্প্রতি রোকেয়া হলে নিয়োগ বাণিজ্য, চিরকুটের মাধ্যমে কয়েকজন ডাকসু নেতার একটি সান্ধ্য কোর্সে ভর্তি ইত্যাদি ঘটনার প্রতিবাদ জানাতেই এমন আয়োজন করেছেন উদ্যোক্তারা। ভূত তাড়ানোর এই যজ্ঞে ব্যবহার করা হয় বিভিন্ন ধরনের রং, কুলো ও ধুপ প্রভূতি।

নতুন ধারার এই প্রতিবাদের অন্যতম উদ্যোক্তা ছাত্রফ্রন্টের ঢাবি শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী বলেন, কিছুদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন অবৈধভাবে কয়েকজনকে একটি সান্ধ্য কোর্সে ভর্তি করালেন, তারা কয়েকজন আবার ডাকসু নেতাও হলেন। আবার আমরা দেখছি, দুনীর্তিতে অভিযুক্ত শোভন সিনেটের সদস্য। রোকেয়া হলে ২১ লাখ টাকার একটি নিয়োগ বাণিজ্য হলো। সব মিলিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্নীতির ভূতেদের একটি আখড়ার পরিণত হয়েছে। এই আখড়া থেকে তাদের তাড়াতেই এ প্রতীকী আয়োজন। 

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব

 


আপনার মন্তব্য