শিরোনাম
প্রকাশ : ১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২২:১৬
আপডেট : ১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২২:২৮

দেড় ঘণ্টা পর তালা খুলে জাফরুল্লাহকে আলোচনায় বসালেন শিক্ষার্থীরা

সাভার প্রতিনিধি:

দেড় ঘণ্টা পর তালা খুলে জাফরুল্লাহকে আলোচনায় বসালেন শিক্ষার্থীরা

সাভারের আশুলিয়ার গণবিশ্ববিদ্যালয় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে গণবিশ্ববিদ্যালয়ে (গণবি) তালাবদ্ধ করে রাখেন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে গণবির একাডেমিক ভবনের চারতলার একটি কক্ষে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনা সভায় অংশ নিতে এসে শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে পড়েন তিনি। দেড় ঘণ্টা তালাবদ্ধ থাকার পর শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনায় বসেন তিনি। 

জানা যায়, গণবিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের বাৎসরিক বাজেট পাসে ও মেয়াদ বৃদ্ধি সংক্রান্ত সাধারণ সভায় যোগ দিতে এসেছিলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা এবং গণবির ট্রাস্টি বোর্ডের অন্যতম ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। গণবিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের ভিপি জুয়েল রানা অন্য শিক্ষার্থী ও ছাত্রনেতাদের নিয়ে তখন তাকে অবরুদ্ধ করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ে বৈধ উপাচার্য নিয়োগের ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েও তার কোনো প্রতিফলন শিক্ষার্থীদের সামনে উপস্থাপন করতে না পারায় এবং বিভিন্ন বিভাগের অনুমোদন সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনের বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ফলপ্রসূ ভূমিকা না থাকায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে নিয়ে ডা. জাফরুল্লাহকে অবরুদ্ধ করে রাখেন গণবিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ও সাধারণ ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মী। 

এদিকে দেড় ঘণ্টা তালাবদ্ধ থাকার পর এ আলোচনায় বসেন তিনি। আলোচনায় শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দাবি শোনার পর ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের কোনো সমস্যা নেই, ইউজিসি সমস্যা করেছে। আমরা নিয়ম মেনে বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনা করে আসছি। হাইকোর্টের আদেশ মেনে আমরা আইনের মধ্যেই থাকতে চাই। ভিসি নিয়ে এ সমস্যা সরকারসৃষ্ট সমস্যা।

তিনি আরও বলেন, আমরা নিয়ম মেনে ভিসির অনুমোদনের জন্য ডা. লায়লা পারভিন বানুসহ তিনজনের প্যানেল করে পাঠিয়েছি।  প্রো-ভিসি, ট্রেজারারেরও নাম পাঠিয়েছি। এটি ইউজিসির নিজের সমস্যা। 

সকালে আলোচনা শুরু হলেও আলোচনা বয়কট করে শিক্ষার্থীরা। এর আগে দুপুরের  প্রায় দেড় ঘণ্টা জাফরুল্লাহকে তালাবদ্ধ করে রাখেন তারা। দেড় ঘণ্টা পর আবারো জাফরুল্লাহকে নিয়ে আলোচনা শুরু করেন শিক্ষার্থীরা। গণবিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদসহ বেশ কিছু ছাত্র সংগঠন জাফরুল্লাহর কাছে নিজেদের দাবি দাওয়া উপস্থাপন করেছেন। 

এর আগে ইউজিসি জানিয়েছিল, ভিসি হওয়ার জন্য ডা. লায়লা পারভিন বানু অযোগ্য। কিন্তু হাইকোর্ট লায়লা পারভিন বানুকে যোগ্য বলে তার নিয়োগের কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য ইউজিসি ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দেয়। কিন্তু নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন না হওয়ায় ভিসি ডা. লায়লা পারভিন বানু এখনো ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর
close