শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ নভেম্বর, ২০১৫ ১৯:৪৮

সংঘর্ষ-সংঘাতের আশংকায়

বরিশাল মেডিকেল কলেজে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা

৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

অনলাইন ডেস্ক


বরিশাল মেডিকেল কলেজে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা

বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজে সকল ধরনের ছাত্র রাজনীতি সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে কলেজ প্রশাসন।

মঙ্গলবার দুপুরে কলেজ একাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সর্ব সন্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. ভাস্কর সাহা।

একই সাথে কলেজের সার্বিক পরিস্থিতি মূল্যায়নের জন্য মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. জাহাঙ্গীর আলমকে প্রধান করে গঠিত ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটিকে আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট দিতে বলেছে একাডেমিক কাউন্সিল।

কলেজের শিক্ষার পরিবেশে বজায় রাখা এবং গত দুই দিন ধরে চলমান ছাত্রলীগের সংঘর্ষ-সংঘাত নিরসনের জন্য এই পদক্ষেপ নেয়ার কথা বলেছেন কলেজ অধ্যক্ষ। ছাত্র রাজনীতি সাময়িক নিষিদ্ধ থাকলেও কলেজের ক্লাস, পরীক্ষা এবং প্রশাসনিক কার্যক্রম চলবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে ক্যাম্পাসে সাময়িকভাবে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধি করার বিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে কলেজের বিবাদমান ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ এবং সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের দাবী কলেজ কর্তৃপক্ষ সমস্যার সমাধান করতে ব্যর্থ হয়েছে। অন্যদিকে, সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত না নিয়ে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করার পরিমাণ ভাল হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ছাত্রলীগের নেতারা।

গত ১৮ অক্টোবর ইমরান হোসেনকে সভাপতি এবং মোস্তাফিজুর রহমান তুহিনকে সাধারণ সম্পাদক করে শেরে-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের ১৫ সদস্যের কমিটি অনুমোদন দেয় মহানগর ছাত্রলীগ। এই কমিটির সকলে সদর আসনের এমপি জেবুুন্নেছা আফরোজ অনুসারী হিসেবে পরিচিত। ওই কমিটি’র বিরুদ্ধাচারণ করে শুরু থেকেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছিল কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা সাদিক আবদুল্লাহ অনুসারী ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা।

এ নিয়ে কয়েক দফা সংঘর্ষ সংঘাত হয়। সব শেষ গত সোমবার গভীর রাতে এবং মঙ্গলবার দুপুরেও সংঘর্ষ হয় ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে। সোমবার রাতের সংঘর্ষে পুলিশের এসআই ফরিদ এবং ছাত্রলীগের এমপি গ্রুপের শুভ ও সাজিদ নামে দুইজন আহত হয়। সংঘর্ষের পর পুলিশ আশিকুর রহমান আশক নামে ছাত্রলীগের এক নেতাকে আটক করে।

বিডি-প্রতিদিন/২৪ নভেম্বর, ২০১৫/মাহবুব


আপনার মন্তব্য