২৫ জুলাই, ২০২১ ১৯:১৮

গঠন হয়নি কোনও তদন্ত কমিটি, গ্রেফতার ৬ জনকে জেলহাজতে প্রেরণ

রমেক থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার পাচারের চেষ্টা, নেপথ্যদের খুঁজছে পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

রমেক থেকে অক্সিজেন সিলিন্ডার পাচারের চেষ্টা, নেপথ্যদের খুঁজছে পুলিশ

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের স্টোর থেকে তিনটি ট্রাকে করে অক্সিজেন সিলিন্ডার পাচারের চেষ্টার ঘটনায় নেপথ্যে কারা ছিল? তাদের খুঁজছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক টিম। 

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ইতোমধ্যে গ্রেফতার হওয়া ৬ জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা ওই তিন ট্রাকের চালক ও সহকারী। বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন রমেক হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার মাহমুদ হাসান।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ট্রাকচালক জহুরুল ইসলাম (৪৩), মো. হাবিল (২৯) ও মো. সুজন হোসেন (২৯) এবং সহকারী সাঈদ হাসান (২৯), সাইফুল ইসলাম (৩৪) ও আশিক রায় (২৮)।  গতকাল শনিবার (২৪ জুলাই) বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়।   

এদিকে, রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে কোনও তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। তবে সরকারি হাসপাতাল থেকে প্রতারণার মাধ্যমে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরানোর চেষ্টার ঘটনাটিকে গুরুত্ব সহকারে দেখছে পুলিশ।

কোতয়ালী থানার ওসি আব্দুর রশিদ বলেন, পুরো ঘটনাটি খতিয়ে  দেখা হচ্ছে। প্রতারকচক্রের সাথে আরও কেউ জড়িত রয়েছে কিনা তা দ্রুতই উদঘাটন হবে।

করোনাকালে অক্সিজেন সিলিন্ডারের ব্যাপক চাহিদার কারণে কোনও প্রতারকচক্র সুকৌশলে সরকারি এই হাসপাতাল থেকে সিলিন্ডার সরানোর পরিকল্পনা করেছিল বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। 

মামলার বাদী হাসপাতালের ওয়ার্ড মাস্টার মাহমুদ হাসান জানান, গত শুক্রবার দিনাজপুর থেকে আসা খালি ট্রাক তিনটি চালান নিয়ে স্টোরে যোগাযোগ করলে সন্দেহ তৈরি হয়। পরে তাদের আটক করে বিষয়টি পুলিশে জানানো হয়। ওইদিন ঢাকা থেকে হাসপাতালে এক ট্রাক অক্সিজেন সিলিন্ডার আসার কথা ছিল।

এদিকে, এই ঘটনায় সচেতন মহলে আলোচনার ঝড় বইছে। সচেতন মহল মনে করছেন এই ঘটনায় হাসপাতালের একটি সিন্ডিকেট জড়িত রয়েছে। ওই সিন্ডিকেটকে আইনের আওতায় আনলে প্রকৃত ঘটনা বেরিয়ে আসবে। 

রমেক হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল করিম জানান, হাসপাতালের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে এটি কোনো চক্রের ষড়যন্ত্র হতে পারে।  হাসপাতালের কোনও ক্ষতি হয়নি বলে ওই ঘটনায় কোন তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি। 


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর