শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২২

শিশুর দেহাবশেষ ডাস্টবিনে মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বরিশালে শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত শিশুর দেহাবশেষ যেভাবে ডাস্টবিনে ফেলেছে, তা মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন এবং এটা গ্রহণযোগ্য নয় বলে মনে করেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। তিনি বলেন, এখনো নারীরা সহিংসতা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। যে হারে নারী ধর্ষণ-নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন, তাতে দোলা নামের চার বছরের শিশুও রক্ষা পায়নি। তার মতে, মাদক বন্ধ করতে হবে, কিন্তু বিচারবহির্ভূত হত্যা বা অপমৃত্যু যেন না হয়। গতকাল গুলশানের লেকশোর হোটেলে আয়োজিত ‘জাতিসংঘের গাইডিংস প্রিন্সিপালস অন বিজনেস অ্যান্ড হিউমান রাইটস’ শীর্ষক জাতীয় সংলাপে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি।

 বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ব্যবসায়ী-শিল্পপতিদের শীর্ষ সংগঠন বাংলাদেশ শিল্প ও বণিক সমিতি ফেডারেশনের (এফবিসিসিআই) সাবেক সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব আফরোজা খান, বাংলাদেশে জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তপনকান্তি ঘোষ। স্বাগত বক্তব্য দেন মানবাধিকার কমিশনের সদস্য নজরুল ইসলাম।

ওই সংলাপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেন, ‘মাঝে মাঝে কেউ ভুল বোঝেন যে আমরা মানবাধিকার বুঝি না। বাংলাদেশে মানবাধিকার উন্নত হয়েছে। দেশ কৃষি থেকে শিল্পে বেশি অগ্রসর হচ্ছে। কৃষির থেকে শিল্পশ্রমিক বাড়ছে। তাই এখন দেশে শ্রমের অধিকারও প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। সরকারও শ্রমিকের অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে। এটাও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠার কাজ।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর