শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ জুলাই, ২০১৯ ২২:৫৫

বাংলাদেশ প্রতিদিনে খবর

রাবির গবেষণাপত্রের শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ বহাল

রাবি প্রতিনিধি

রাবির গবেষণাপত্রের শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ বহাল

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগ এমফিল গবেষণাপত্রের শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দটি বহাল রাখতে বাধ্য হয়েছে। এর আগে শিরোনাম থেকে বঙ্গবন্ধুর নাম বাদ দেওয়ার ঘটনা নিয়ে ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’-এ খবর প্রকাশের পর ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে বিভাগটি। বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ ঘটনা নিয়ে প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। এ অবস্থায় শেষ পর্যন্ত বিভাগের একাডেমিক                কমিটির সভায় এমফিল গবেষণাপত্রের শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দটি বহাল রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে গতকাল নিশ্চিত করেছেন গবেষণার সুপারভাইজার অধ্যাপক আরিফুজ্জামান। তিনি জানান, গবেষণাপত্রে শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দটি বহাল থাকবে। ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দ বহাল রেখেই গবেষণাটি অনুমোদিত হয়েছে। উল্লেখ্য, গত ৬ জুলাই বাংলাদেশ প্রতিদিন অনলাইনে ‘এমফিল গবেষণার শিরোনামে বঙ্গবন্ধুর নাম থাকায় আপত্তি!’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নজরে এলে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়। জানা গেছে, বঙ্গবন্ধুর সরকারের পররাষ্ট্রনীতি নিয়ে বিভাগের খাদিজা আক্তার নামে এক এমফিল গবেষক ‘বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রনীতি : প্রেক্ষিত মধ্যপ্রাচ্য’ শিরোনামে ওই এমফিল গবেষণা করেন। সেই গবেষণায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামল ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত মধ্যপ্রাচ্যকেন্দ্রিক যেসব পররাষ্ট্রনীতি গ্রহণ করা হয়েছিল, সেসব বিষয় নিয়ে তথ্য সন্নিবেশ করা হয়। এই গবেষণাটির সুপারভাইজার হিসেবে ছিলেন বিভাগের অধ্যাপক আরিফুর রহমান এবং কো-সুপারভাইজার ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. ফায়েকুজ্জামান। গবেষণা শেষে তা জমা দেওয়া হলে শিরোনাম নিয়ে আপত্তি ওঠে একাডেমিক কমিটিতে। বিভাগের বিএনপিপন্থি শিক্ষকরা গবেষণাপত্রের শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ উল্লেখ করায় আপত্তি প্রকাশ করেন। সে কারণে গত ৪ জুলাই অনুষ্ঠিত বিভাগের একাডেমিক কমিটির সাধারণ সভায় গবেষণাপত্রটির শিরোনাম পরিবর্তন করতে প্রস্তাব দেন তারা। তাদের প্রস্তাব অনুযায়ী গবেষণার শিরোনাম করা হয় ‘বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি (১৯৭২-৭৫); প্রেক্ষিত মধ্যপ্রাচ্য’। এরপর বিএনপিপন্থি শিক্ষকদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে এই প্রস্তাবই গৃহীত হয়।

বিষয়টি নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হলে বিভাগের একাডেমিক কমিটির সভা আহ্বান করা হয়। সভায় ওই গবেষণাপত্রে শিরোনামে ‘বঙ্গবন্ধু’ শব্দ বহাল রাখার সিদ্ধান্ত হয়। ফলে ‘বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রনীতি : প্রেক্ষিত মধ্যপ্রাচ্য’ শিরোনামে ওই এমফিল গবেষণা জমা দেওয়ার সিদ্ধান্ত অনুমোদিত হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর
close