শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৯

১৪ লাখ টন তেল আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৪ লাখ টন তেল আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন

পঞ্জিকাবর্ষ ২০২০-এ সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরব থেকে ৬ হাজার ৫৭৮ কোটি ৫০ লাখ টাকার ১৪ লাখ টন অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির দরপ্রস্তাব অনুমোদন করেছে সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। গতকাল সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত কমিটির সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের জানান, ২০২০ পঞ্জিকাবর্ষে ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেডের প্রক্রিয়াকরণের জন্য আবুধাবি ন্যাশনাল অয়েল কোম্পানি ও সৌদি অ্যারাবিয়ান অয়েল কোম্পানি থেকে মারবান ও অ্যারাবিয়ান লাইট ক্রুড-এএলসি আমদানির একটি প্রস্তাাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সরকার টু সরকার নীতি অনুসরণ করে ১৪ লাখ টন অপরিশোধিত তেল কেনা হবে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ হাজার ৫৭৮ কোটি ৫০ লাখ টাকা। এ তেল আমাদের দেশে উৎপাদন হয় না। জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ এ তেল আমদানি করবে। আরেক প্রস্তাবে জানুয়ারি-জুন, ২০২০ সময়ে আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্র প্রক্রিয়ায় ৫ হাজার কোটি ৪০ লাখ ৫০ হাজার টাকার গ্যাস অয়েল, জেট এ, ফার্নেস অয়েল ও মোগ্যাস আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।  এর মধ্যে ৫.৬৬৯-৬.৫৬৪ মিলিয়ন ব্যারেল (৭ লাখ ৬০ হাজার থেকে ৮ লাখ ৮০ হাজার টন) গ্যাস অয়েল। প্রতি ব্যারেল ২.৩৩ মার্কিন ডলার। ০.৮৮০ মিলিয়ন ব্যারেল (১ লাখ ১০ হাজার টন) জেট এ, প্রতি ব্যারেল ৩.৩২ মার্কিন ডলার। ১ লাখ ৪০ হাজার টন ফার্নেস অয়েল, প্রতি টন ২৪.৯৮ মার্কিন ডলার ও ০.২৫৮ মিলিয়ন ব্যারেল (৩০ হাজার মেট্রিক টন) মোগ্যাস, প্রতি ব্যারেল ৫.৪৩ মার্কিন ডলার।

বৈঠকে অনুমোদিত অন্য প্রস্তাবগুলো হলো- ডিএপি ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (ডিএপিএফসিএল)-এর জন্য ৩০ হাজার টন ফসফরিক অ্যাসিড আমদানির প্রস্তাব অনুমোদন; যার ব্যয় ধরা হয়েছে ৮৭ কোটি ১৮ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। এ ছাড়া বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের শতভাগ পল্লী বিদ্যুতায়নের জন্য নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ (ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগ) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় ২৬ হাজার ৭৪০ কিলোমিটার সঞ্চারণ লাইনের জন্য কন্ডাক্টর, এসিএসআর, বার কেনার প্রস্তাব অনুমোদন। এ কাজটি বাস্তবায়ন করবে বিদ্যুৎ বিভাগ। ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫১ কোটি ৯ লাখ ৮০ হাজার টাকা।

এর আগে অর্থনৈতিক বিষয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় সৌদি আরব থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে চুক্তির মাধ্যমে ২০২০-২১ অর্থবছরে দেশে ইউরিয়া সারের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে সৌদি বেসিক ইন্ডাস্ট্রিজ করপোরেশন (এসএবিআইসি) ৪ লাখ ৫ হাজার টন ইউরিয়া সার আমদানির ১৩তম সংশোধনী চুক্তি স্বাক্ষরের নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর