শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:৫০

অমর একুশে পালনের প্রস্তুতি চলছে ঢাবিতে

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

অমর একুশে পালনের প্রস্তুতি চলছে ঢাবিতে

যথাযোগ্য মর্যাদায় সুষ্ঠুভাবে অমর একুশে ফেব্রুয়ারি শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের লক্ষ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে চলছে নানা প্রস্তুতি। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করাসহ সৌন্দর্য বৃদ্ধি ও পুরো এলাকার নিরাপত্তা নিশ্চিতের কাজ চলছে সমানতালে।

অমর একুশে উদযাপন উপলক্ষে ‘অমর একুশে উদযাপন কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি এবং বিভিন্ন উপ-কমিটি’র এক যৌথসভা গতকাল বিশ^বিদ্যালয়ের অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুমে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান। এ সময় তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম অক্ষুণœ রেখে সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও সুশৃঙ্খলভাবে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালনের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার সর্বাত্মক সহযোগিতা চান।

একুশে ফেব্রুয়ারিতে ‘শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের প্রতি সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধা নিবেদনের যাবতীয় ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এ বছরও দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদা

এবং সুষ্ঠুভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে গত ২৩ জানুয়ারি একটি কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটিসহ ১২টি উপ-কমিটি গঠন করা হয়।

 

ইতিমধ্যে দিবসটি উদযাপনে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে প্রস্তুতি সভা করেছে ‘অমর একুশে উদযাপন কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি’। এ ছাড়াও অনুষ্ঠান স্থলের নিরাপত্তার বিষয়েও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

এ বছর একুশে ফেব্রুয়ারি উদযাপনের সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী বলেন, রীতি অনুযায়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কমপক্ষে এক মাস আগে থেকে একাডেমিক কাজের পাশাপাশি একুশে উদযাপনের প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছে। উপাচার্য এ বিষয়টি সার্বিকভাবে তদারকি করেন। কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটিসহ বিভিন্ন উপ-কমিটিতে কাজ ভাগ করে প্রস্তুতি চলছে।

শহীদ মিনারের সৌন্দর্য বৃদ্ধির কাজ চলছে। ধোয়ামোছা ও নতুন করে রং করা হচ্ছে। এ ছাড়াও লাইটিং ও সিসিটিভি ক্যামেরা বসানোর কাজও চলছে। নিরাপত্তার বিষয়ে প্রক্টর জানান, নিরাপত্তা নিশ্চিতের জন্য শহীদ মিনার এলাকায় ডিএমপি ও অন্যান্য গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন কাজ করবে। অধিকতর নিরাপত্তার লক্ষ্যে পর্যাপ্ত সংখ্যক সিসিক্যামেরা স্থাপন করা হচ্ছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর