শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ জুন, ২০২০ ০১:০৩

করোনা নিয়ে পরিকল্পনাহীনতার খেসারত দিতে হচ্ছে মানুষকে

কালের কণ্ঠ ও কেয়ারের বাজেট আলোচনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গাফিলতি ও তাদের পরিকল্পনাহীনতার খেসারত দিতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। বিশ্বের অন্যান্য দেশে যেখানে করোনা সংক্রমণ ও মৃতের হার কমছে, বাংলাদেশে উল্টো বাড়ছে। জনপ্রতিনিধিরা তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পারছেন না। করোনা মোকাবিলায় দেশে ঐক্যবদ্ধ ও সম্মিলিত কোনো কাজ হচ্ছে না। ফলে করোনা সংক্রমণের হারও কমছে না। গতকাল কালের কণ্ঠ ও কেয়ার বাংলাদেশ আয়োজিত অনলাইন আলোচনায় জনপ্রতিনিধিরা এসব কথা বলেন। তাঁরা বলেন, সরকার করোনা মোকাবিলায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ১ লাখ কোটি টাকার বেশি প্রণোদনা ঘোষণা করেছে। কিন্তু কারা নজরদারি করবে, তার সুনির্দিষ্ট কোনো কর্মপরিকল্পনা নেই। ফলে প্রণোদনার প্যাকেজ বাস্তবায়ন নিয়ে যথেষ্ট সংশয় আছে। কোটি কোটি টাকা খরচ করে এত বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত কেন অনলাইনে ভ্যাট কার্যকর করা যায়নি তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন অর্থনীতিবিদরা। করোনার কারণে যারা দারিদ্র্যসীমার নিচে নেমে গেছেন, তাদের দ্রুত কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করারও তাগিদ দিয়েছেন তারা। কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনের সঞ্চালনায়   গতকালের অনলাইন সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, নাহিম রাজ্জাক, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী, মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি-এমসিসিআই সভাপতি ব্যারিস্টার নিহাদ কবির, সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ-সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুনসহ অন্যরা। স্বাগত বক্তব্য দেন কেয়ার বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর রমেশ সিং। আর মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিচালক আমানুর রহমান।

ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, করোনা সংক্রমণ কমানোর জন্য এখন পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট কোনো কর্মপরিকল্পনা দেখতে পাচ্ছি না। জনপ্রতিনিধি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক শক্তিসহ সবার ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা ছাড়া করোনা মোকাবিলা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, সামাজিক সুরক্ষা খাতে সরকার বরাদ্দ বাড়িয়েছে। তবে এ খাতে সরকারি কর্মকর্তাদের পেনশন থাকা নিয়ে অনেকে সমালোচনা করছেন। আমিও মনে করি, সরকারি কর্মকর্তাদের পেনশনের টাকা সামাজিক সুরক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করা ঠিক নয়। আলাদা করা দরকার। সামাজিক সুরক্ষা খাতে বরাদ্দ আরও বাড়ানো দরকার আছে। তিনি বলেন, আমাদের হাতে প্রচুর তথ্য আছে। কিন্তু সমন্বয় নেই। সমন্বয়টা জরুরি। মন্ত্রী বলেন, ব্যাংকের সংস্কারের কথা অনেকে বলছেন। আমিও মনে করি, ব্যাংকের সংস্কার আনা জরুরি। এত বছর পেরিয়ে গেলেও কেন ভ্যাট অনলাইনে হলো না, তা নিয়েও নিজের অসন্তোষের কথা জানান মন্ত্রী।

এই বিভাগের আরও খবর