শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ মার্চ, ২০২১ ২২:৫৯

বাড়ছে কিশোর গ্যাংয়ের দ্বন্দ্বে খুন

চট্টগ্রামে রক্তে রঞ্জিত কিশোরদের হাত

মুহাম্মদ সেলিম, চট্টগ্রাম

চট্টগ্রামে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে কিশোর অপরাধীরা। মাদক বিকিকিনি, দখল-বেখল কিংবা এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘাতে জড়িয়ে পড়ছে তারা। কখনো তা পরিণত হচ্ছে হত্যাকান্ডে। যদিও প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে নেওয়া হয়েছে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ। 

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) উপ-কমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক বলেন, ‘কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে আনতে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে পুলিশ। বিশেষ করে অভিভাবক ও বিভিন্ন স্তরের লোকজন নিয়ে কাজ করছে পুলিশ। সম্প্রতি যতগুলো ঘটনা ঘটেছে সেগুলোর দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’ জেলা পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, ‘কিশোর গ্যাং নিয়ন্ত্রণে কথিত বড় ভাইদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে। শিগগিরই কথিত বড় ভাই ও তাদের অনুসারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ জানা যায়, চট্টগ্রাম নগরী ও জেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন, ওয়ার্ড এবং থানার অলিগলিতে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে কিশোর গ্যাংয়ের কয়েকশ সদস্য। এসব গ্যাংয়ে জড়িয়ে পড়েছে দরিদ্র পরিবার থেকে শুরু করে উচ্চবিত্ত পরিবারের সন্তানরাও। এমনকি বাদ যায়নি পথ শিশুরাও। তারা ছোট গ্রুপে বিভক্ত হয়ে চালাচ্ছে অপরাধ কর্মকান্ড। ঠুনকো ঘটনায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া কিংবা সংঘাতে জড়িয়ে পড়ছে। কখনো সংঘাতগুলো হত্যাকান্ডে গড়িয়েছে। অভিযোগ রয়েছে কিশোর অপরাধীদের আশ্রয়-প্রশ্রয়ে রয়েছে কথিত কিছু রাজনৈতিক বড় ভাই। মূলত তাদের মদদেই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে কিশোর অপরাধীরা। এসব কিশোর অপরাধীদের মধ্যে শুধুমাত্র চট্টগ্রাম নগরীর ১৬ থানায় ২ শতাধিক কিশোর গ্যাংয়ের পাঁচ শতাধিক সদস্য সক্রিয় রয়েছে। তাদের পেছনে মদদদাতা হিসেবে রয়েছে কমপক্ষে ৫০ কথিত বড় ভাই। গত ১৭ মার্চ নগরীর ডবলমুরিং থানায় কিশোর গ্যাংয়ের হাতে খুন হন হাশেম খান নামে এক যুবক। এ ঘটনায় আহত হন আরও কমপক্ষে পাঁচ জন। ১২ মার্চ হালিশহরে বোনের প্রেমে বাধা দেওয়ায় কিশোর গ্যাংয়ের হাতে খুন হন মো. কাউসার। ১৯ ফেব্রুয়ারি রাতে আনোয়ারা উপজেলা সদরে আধিপত্য বিস্তারের জেরে খুন হন ছাত্রলীগ নেতা আশরাফ উদ্দিন চৌধুরী। ১৩ জানুয়ারি আধিপত্য বিস্তার নিয়ে খুন হন সাইফুল ইসলাম নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী।  ৩০ ডিসেম্বর দুই কিশোরের হাতে খুন হন লোহাগাড়া জাতীয় পার্টির নেতা আনোয়ার হোসেন।

 ১৩ নভেম্বর সাতকানিয়ায় কথা কাটাকাটির জের ধরে রাজনৈতিক সহযোদ্ধার হাতে খুন হন ছাত্রলীগ কর্মী সাবিদুল ইসলাম সাজ্জাদ। ২০১৯ সালের ২৬ আগস্ট কিশোর গ্যাংয়ের হাতে খুন হন স্কুল ছাত্র জাকির হোসেন ওরফে সানি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর