শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১৩:১৭
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১৩:২০
প্রিন্ট করুন printer

৫ মাসে ৩১ বার করোনা পরীক্ষা, প্রতিবারই রিপোর্ট পজিটিভ!

অনলাইন ডেস্ক

৫ মাসে ৩১ বার করোনা পরীক্ষা, প্রতিবারই রিপোর্ট পজিটিভ!
সারদা

গত বছর ২৮ আগস্ট প্রথমবার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল ভারতের রাজস্থানের বাসিন্দা এক নারীর। সেই রিপোর্ট পজিটিভ আসায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু তারপর থেকে বিগত পাঁচ মাসে আরও ৩১ বার তার করোনা পরীক্ষা হয়। আর আশ্চর্যের বিষয়, প্রতিবারই সেই রিপোর্টও পজিটিভ এসেছে। আর এই খবর সামনে আসতেই অনেকেই অবাকও হয়েছেন। এমনকি, হতবাক চিকিৎসকরাও।

জানা গেছে, সারদা নামে ওই নারী রাজস্থানের ভরতপুরের বাঝেরা গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার পরই তাকে ভরতপুরের আরবিএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর ওই নারীর শারীরিক এবং মানসিক পরিস্থিতি দেখার পর একজনকে সবসময় তার সঙ্গে রাখার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়। পরবর্তীতে অবশ্য কোয়ারেন্টাইনের জন্য তাঁকে এক আশ্রমে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

ওই আশ্রমে থাকার সময়ই পরপর ৩১ বার সারদার করোনা পরীক্ষা হয়। কিন্তু সবাইকে অবাক করে প্রত্যেকবারই করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। যা দেখার পর সবাই হতবাক। এরপর ওই নারীকে পৃথক আইসোলেশনে রাখা হয়। কিন্তু তাতেও সমাধান হয়নি। এমনকী হোমিওপ্যাথি, আর্য়ুবেদিক, অ্যালোপেথিক- সকল রকম ওষুধ প্রয়োগ করেও কোনও লাভ হয়নি। অবশ্য এই সময় কখনই তার স্বাস্থ্যের কোন অবনতিও হয়নি, শরীরে কোনও দুর্বলতাও দেখা যায়নি। তাতে আরও অবাক চিকিৎসকরা।

ইতিমধ্যে জয়পুরের এসএমএস হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছে আশ্রম কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি জানার পর সেখানকার চিকিৎসকরাও অবাক হয়ে যান। ওই নারীকে আপাতত জয়পুরের হাসপাতালে পাঠানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সেখানেই তার চিকিৎসা হবে বলে জানা গেছে। ভরতপুরে এই মুহূর্তে নতুন করে কোনও করোনা আক্রান্ত নেই। কিন্তু একজন নারীর একাধিকবার মারণ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর রীতিমতো উদ্বেগ বাড়িয়েছে প্রশাসনের। চিকিৎসকদের কপালেও চিন্তার ভাঁজ চওড়া হয়েছে আরও।


বিডি-প্রতিদিন/সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য