২৫ জানুয়ারি, ২০২২ ১০:৫৩
বিবিসি বাংলার প্রতিবেদন

ওমিক্রনে আক্রান্ত হলে কয়দিনের মধ্যে উপসর্গ দেখা দেয়?

অনলাইন ডেস্ক

ওমিক্রনে আক্রান্ত হলে কয়দিনের মধ্যে উপসর্গ দেখা দেয়?

প্রতীকী ছবি

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে দাপট দেখাচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সবচেয়ে বেশি সংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’। প্রতিদিন সারাবিশ্বে লাখ লাশ মানুষে করোনায় আক্রান্ত হচ্ছে, যার মধ্যে অনেকের শরীরেই পাওয়া গেছে ওমিক্রনের উপস্থিতি।

তবে বিশ্বব্যাপী ওমিক্রন ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লেও কোনও কোনও দেশ আইসোলেশনের থাকার মেয়াদ কমিয়ে দিয়েছে। কিন্তু ঠিক কিসের ভিত্তিতে, কোন ভরসায় বিভিন্ন দেশ ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগীদের জন্য আইসোলেশনের সময় কমিয়ে দেওয়া হচ্ছে? 

তাছাড়া এই ভ্যারিয়েন্ট সম্পর্কে আমরা কতটা জানি? আক্রান্ত হওয়ার কতদিনের মধ্যে এর উপসর্গ শুরু হয়?

যদিও ওমিক্রন নিয়ে এখনও পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে, কিন্তু এখন পর্যন্ত পাওয়া গবেষণার ফলাফলে দেখা গেছে আগের ভ্যরিয়েন্টগুলোর চেয়ে ওমিক্রন অপেক্ষাকৃত দুর্বল এবং এই ভাইরাস শরীরে ঢোকার পর দ্রুততর সময়ে রোগীর ভেতর উপসর্গ দেখা দেয়।

করোনাভাইরাসের আগের ভ্যারিয়েন্টগুলোর ক্ষেত্রে আক্রান্ত হওয়ার পাঁচ থেকে ছয়দিন পর রোগীর শরীরে উপসর্গ দেখা দিয়েছে। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের ক্ষেত্রে এই সময় ছিল চারদিনের মত।

কিন্তু ওমিক্রনে আক্রান্ত রোগীর উপসর্গ দুই থেকে তিনদিনের মধ্যে ফুটে উঠতে শুরু করে।

যুক্তরাষ্ট্রে ডিসেম্বরে প্রকাশিত এক গবেষণার ফলাফলে দেখা যায়, ওমিক্রনের উপসর্গ তিনদিনের মধ্যে স্পষ্ট হয়ে পড়ছে। অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের ক্ষেত্রে এই সময়সীমা গড়ে পাঁচদিন।

স্পেনের লা রিওহা ইন্টারন্যাশনাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. ভিসেন্তে সোরিয়ানো বলেন, ওমিক্রন শরীরে ঢোকার একদিনের মধ্যে তা কাজ করতে শুরু করে দিতে পারে। আর, দুদিনের মধ্যে রোগী শনাক্ত করা যায়। সূত্র: বিবিসি বাংলা

বিডি প্রতিদিন/কালাম

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর