শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৮ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ জুন, ২০১৯ ২৩:২৩

কেন্দুয়ায় পোশাক কর্মীকে গণধর্ষণ

নেত্রকোনা প্রতিনিধি

কেন্দুয়ায় পোশাক কর্মীকে গণধর্ষণ

ঈদে নিজ বাড়ি এসে নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় এক গার্মেন্ট কর্মী কথিত স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুরে কেন্দুয়া থানায় মামলা দায়েরের পর ভিকটিমকে পরীক্ষার জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে আনা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে কেন্দুয়া ও মদন সড়কের গুগবাজার এলাকার শাপলা ইটখলায়। পুলিশ ও ভিকটিম সূত্রে জানা গেছে, মদন থানার জাউলা গ্রামের সুমনের সঙ্গে কেন্দুয়া থানার মাসকা গ্রামের এক নারী গাজীপুর একটি সোয়েটার কোম্পানিতে একসঙ্গে চাকরি করেন। তারা দুজনই বিবাহিত থাকার পরও একজন আরেকজনকে পছন্দ করে পুনরায় বিয়ে করেন। ঈদের ছুটিতে বাড়ি আসায় কথিত স্বামী সুমন মদন থেকে এসে ওই নারীকে কেন্দুয়া মাসকা নিজ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে ঘুরতে মোটরসাইকেলে করে বের হয়। এরপর শাপলা ইটখলার কাছে আসতেই মোটরসাইকেলটি নষ্ট হয়ে গেছে বলে মেয়েটিকে একা দাঁড় করিয়ে গাড়ি স্টার্ট দিতে থাকে। এ সময় ইটখলার ভেতর থেকে তিন যুবক এসে প্রথমে দেশলাই চায়। পরে গাড়ি ঠিক করার কথা বলে সুমনকে ভেতরের দিকে নিয়ে যায়। মেয়েটি একা কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে ভেতরে গিয়ে দেখে সুমনের হাত বাঁধা। পরে তিন যুবক তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এরপর মেয়েটিকে একা ফেলে ওই তিনজনসহ কথিত স্বামী সুমনও মোটর সাইকেল নিয়ে উধাও হয়ে যায়। এরপর ফাঁড়ির কাছে গিয়ে ভিকটিম জানালে পুলিশ গিয়ে রাতেই তাকে উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে কেন্দুয়া সার্কেলের এএসপি মাহমুদুল হাসান সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রাত থেকেই  মোটরসাইকেল ও ধর্ষকদের খোঁজ করছে পুলিশ।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর