Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ জুলাই, ২০১৯ ১৯:০৫

হবিগঞ্জে ৩০ গ্রাম প্লাবিত

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

হবিগঞ্জে ৩০ গ্রাম প্লাবিত

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে কুশিয়ারা নদীর পানি বেড়ে বাঁধ ভেঙে ৩টি ইউনিয়নের প্রায় ৩০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন হাজারও পরিবার। বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন কয়েকশ’ পরিবার। ইতিমধ্যে এ এলাকার ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ৩টি আশ্রয় কেন্দ্র খুলে বন্যাদুর্গতদের সেখানে সরিয়ে নেয়া হচ্ছে। 

টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কুশিয়ারা নদীর পানি কয়েক দিন ধরেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। শনিবার নদীর পানি বিপদসীমার উপরে উঠে। রবিবার নদীর কুশিয়ারা ডাইক অংশের বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয় হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক, ইনাতগঞ্জ ও আউশকান্দি ইউনিয়নের অন্তত ৩০টি গ্রাম। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েন ২০ হাজার মানুষ। নদীর পানি বাড়তে থাকায় দীঘলবাক বাজারসহ বিভিন্ন দোকান-পাঠ, স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা ও বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। বন্যার পানিতে বিভিন্ন কাঁচা-পাকা সড়ক তলিয়ে গেছে। এর ফলে বন্ধ হয়ে পড়েছে বিভিন্ন এলাকার যোগাযোগ ব্যবস্থাও। বন্যার পানিতে ঘরবাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় অনেকেই বাড়ি ছেড়ে চলে গেছেন বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্রে।

সোমবার বিকেল থেকে উপজেলার রাধাপুর গ্রামে কুশিয়ারা প্রতিরক্ষা বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় দ্রুতগতিতে প্রবল স্রোতে পানি প্রবেশ করছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন গ্রাম। ফলে ভয়াবহ বন্যার আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী। গ্রামগুলো নদী ভাঙ্গনের কবল থেকে রক্ষা করতে হলে কুশিয়ারা নদীতে বাঁধ দেয়ার দাবি জানান দীঘলবাক ইউনিয়ন পরিষদ ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ এওলা।

বন্যা কবলিতদের জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ দেয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য গাজী মোহাম্মদ শাহনওয়াজ মিলাদ। 

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য