শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:১৮
আপডেট : ২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৫০

শার্শায় আলোচিত সেই ধর্ষণে পুলিশ কর্মকর্তার সম্পৃক্ততা পায়নি পিবিআই

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

শার্শায় আলোচিত সেই ধর্ষণে পুলিশ কর্মকর্তার সম্পৃক্ততা পায়নি পিবিআই

তদন্তে যশোরের শার্শায় আলোচিত গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা খায়রুলের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মঙ্গলবার দুপুরে পিবিআই যশোর অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমকেএইচ জাহাঙ্গীর হোসেন একথা জানান।

তিনি বলেন, বাদীর অভিযোগে গ্রেফতার তিন আসামিকে গ্রেফতার ও জিজ্ঞাসাবাদ করে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এ তিনজনের মধ্যে একজন আদালতে স্বেচ্ছায় জবানবন্দি প্রদান করেন। পরে আটক তিনজনেরই ডিএনএ পরীক্ষা করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, ওই আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী পর্যালোচনা করে দেখা যায়, আসামি বাদীর পূর্ব পরিচিত এবং পারিবারিকভাবে তাদের মধ্যে সম্পর্ক ছিল। এ ঘটনায় প্রাথমিকভাবে একজনের সম্পৃক্ততা পাওয়ায় তার বিরুদ্ধে পুলিশ রিপোর্ট দাখিলের বিষয়টি এখন প্রক্রিয়াধীন। তবে ধর্ষণের ঘটনায় শার্শা উপজেলার গোড়পাড়া পুলিশ ক্যাম্পের এসআই খায়রুল আলমের জড়িত থাকার বিষয়টি প্রাথমিক তদন্তে প্রমাণিত হয়নি বলে জানান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার।
 
গত বছর ২ সেপ্টেম্বর যশোরের শার্শা উপজেলার লক্ষণপুর গ্রামে দুই সন্তানের জননী এক গৃহবধূ (৩০) স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই খায়রুল আলম ও তার সোর্স কামরুজ্জামান কামারুল কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হন বলে অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় ৩ সেপ্টেম্বর এসআই খায়রুলসহ চারজনের নাম উল্লেখ করে শার্শা থানায় একটি মামলা করেন তিনি। বিষয়টি সারাদেশে আলোচিত ঘটনায় পরিণত হয়। পরে মামলাটি তদন্তের জন্য পিবিআই-এর কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

বিডি-প্রতিদিন/মাহবুব


আপনার মন্তব্য