শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১৬:০১
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১৬:১৫

দিনাজপুরে পচনের মুখে ক্ষেতের আলু

দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরে পচনের মুখে ক্ষেতের আলু

শীতের মধ্যে মেঘলা আবহাওয়া আর ঘন কুয়াশায় দিনাজপুরের কাহারোল, চিরিরবন্দর, খানসামাসহ কয়েক উপজেলার বিভিন্ন এলাকার আলু ক্ষেতে পচন (লেট ব্রাইট) রোগ দেখা দিয়েছে। এতে উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আশংকায় রয়েছে কৃষক। তাই লোকসান কাটিয়ে উঠতে অনেকেই অপরিপক্ক আলু তুলে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।
কৃষকদের অভিযোগ, কৃষি কর্মকর্তারা সঠিক সময়ে পরামর্শ না দেওয়ায় এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। যথাযথ পরামর্শ না পেয়ে কৃষকদের অনেকে কীটনাশক দোকানদারদের উপর নির্ভর করছেন। স্প্রে করেও প্রতিকার না পেয়ে তারা দিশেহারা। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, পরামর্শ নিয়ে কাজ করলে কৃষকর লেট ব্রাইট রোগ প্রতিরোধে ভাল ভূমিকা রাখতে পারবেন।
কৃষকরা বলছেন, আলু বীজ রোপণের সময় জমিতে সঠিক পরিমাণে সার প্রয়োগ করা হয়েছে। কিন্তু হঠাৎ করে আলু ক্ষেতে লেট ব্রাইট রোগটি আক্রমণ করেছে। ফলে ভালো উৎপাদন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষক। অতিরিক্ত অর্থ ব্যয় করে কীটনাশক প্রয়োগের মাধ্যমে ক্ষেত রক্ষার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। 
কাহারোলের হাটীয়ারি গ্রামের কৃষক অতুল চন্দ্র রায় জানান, আলুর ক্ষেতে লেট ব্রাইট রোগ দেখা দিয়েছে। বাজারে দোকানিরা যে কীটনাশক দেন সেটাই প্রয়োগ করেছি। কিন্তু ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে না। চিরিরবন্দরের আলু চাষী ফজলুর রহমান মাস্টার বলেন, লাভের আশায় আলু ও টমেটো চাষ করেছি। গাছও ভালো হয়েছে। কিন্তু গত কয়েকদিন শীতের প্রকোপ ও কুয়াশার কারণে ক্ষেত নিয়ে চিন্তিত আছি। 

দিনাজপুরে এবারে ৪৩ হাজার হেক্টর জমিতে আলু চাষ হয়েছে। এই জেলার উৎপাদিত আলু দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করা হয়। তবে এ মৌসুমে কয়েক দফায় শৈত্যপ্রবাহ ছাড়াও তীব্র শীত ও ঘন কুয়াশায় আলুর ক্ষেতে দেখা দিয়েছে লেট ব্রাইট রোগ। এই রোগের আক্রমণে শুকিয়ে যাচ্ছে আলুর পাতা, এরপরে মরে যাচ্ছে গাছ। আবার ক্ষেতে কীটনাশক স্প্রে করেও লেট ব্রাইট রোগ থেকে রক্ষা পাচ্ছে না। একই অবস্থা টমেটো চাষেও। এ নিয়ে চিন্তায় পড়েছে চাষীরা। 
কাহারোল উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা অরুন চন্দ্র রায় বলেন, আলু ক্ষেতের লেট ব্রাইট রোগের জন্য ক্ষেতে রিডোমিল গোল্ড ও সিকিউর নামে কীটনাশক প্রয়োগ করতে কৃষকদের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।
দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ তৌহিদুল ইকবাল সাংবাদিকদের জানান, কৃষি কর্মকর্তাদের কাছ থেকে পরামর্শ নিয়ে কাজ করলে কৃষকরা লেট ব্রাইট রোগ প্রতিরোধে ভাল ভূমিকা রাখতে পারবেন।
বিডি প্রতিদিন/আল আমীন


আপনার মন্তব্য