শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ জুলাই, ২০২০ ১৮:২২

বরিশালে ১২ ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা ও ছেলের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল

বরিশালে ১২ ঘণ্টার ব্যবধানে বাবা ও ছেলের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার পান্ডব নদী তীরের ঝোপজঙ্গল থেকে বাবা ও ছেলের রক্তত্ব লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১২ ঘণ্টার ব্যবধানে তাদের উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করেছে পুলিশ। 

বাবা ও ছেলে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবি করেছেন তাদের স্বজনরা। এদিকে হত্যার ঘটনা তদন্ত করে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছেন বরিশালের পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার কবাই ইউনিয়নের চরলক্ষ্মীপাশা গ্রামের পান্ডব নদী তীরের ঝোপ জঙ্গল থেকে হেলাল উদ্দিন নামে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তার পেটে ধারালো অস্ত্রের ক্ষত চিহ্ন রয়েছে। এর আগে একই এলাকা থেকে গত শুক্রবার রাত ৮টার দিকে হেলাল উদ্দিনের ছেলে ইয়াসিন হাওলাদারের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতদের বাড়ি পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার কলারদোনিয়ানী গ্রামে। তারা উভয়ে মাছ ধরার চাই (ফাঁদ) বিক্রেতা। 

নিহতদের স্বজনরা জানান, গত শনিবার (২৭ জুন) পিরোজপুরের নিজ বাড়ি থেকে ট্রলার বোঝাই চাই নিয়ে বরিশালের বাকেরগঞ্জের বিভিন্ন হাটে বিক্রির জন্য নিয়ে আসেন হেলাল উদ্দিন ও তার ছেলে ইয়াসিন। গত শুক্রবার বাকেরগঞ্জের কবাই হাটে প্রায় অর্ধেক চাই বিক্রির পর অন্য হাটে বিক্রির জন্য যাওয়ার পথে পান্ডব নদীর পাড়ে দুর্বৃত্তরা তাদের চাইসহ ট্রলার ও টাকা ছিনিয়ে নিয়ে বাবা ও ছেলেকে কুপিয়ে এবং জবাই করে হত্যা করে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

কবাই হাটের চাই বিক্রেতা মো. হাসান জানান, কবাই হাটে এক ব্যক্তি হেলাল উদ্দিন ও তার ছেলে ইয়াসিনের কাছ থেকে ৬০টি চাই ক্রয় করেন। ক্রেতা ওই ৬০টি চাই তার বাড়ি পৌঁছে দিতে বলেন। ট্রলারসহ চাই পৌঁছে দিতে গিয়ে আর ফিরে আসেননি বাবা ও ছেলে। পরে শুনতে পান বাবা ও ছেলেকে পান্ডব নদীর তীরে হত্যা করা হয়েছে।  

স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশ শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ছেলে ইয়াসিন হাওলাদারের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে। শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে একই এলাকা থেকে ইয়সিনের বাবা হেলালউদ্দিনের রক্তাত্ব লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ময়না তদন্তের জন্য তাদের লাশ বরিশাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। লাশ উদ্ধারের স্থান থেকে কিছু আম ও চাই উদ্ধার করে পুলিশ। 

বাবা ও ছেলেকে নির্মমভাবে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের কঠোর বিচার দাবি করেছেন নিহতদের স্বজনরা। তারা দ্রুত সময়ের মধ্যে হত্যাকারীদের শনাক্ত করে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন। 

এদিকে, বাবা ও ছেলেকে কুপিয়ে এবং গলাকেটে হত্যার ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। হেলাল উদ্দিনের স্ত্রী নাসিমা বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে শনিবার সকালে এই মামলা দায়ের করেন। 

বরিশালের পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম জানান, চাই ব্যবসায়ী বাবা ও ছেলেকে কারা কেন হত্যা করেছে তার ব্যাপক অনুসন্ধান চলছে। পুলিশ অচিরেই বাবা ও ছেলেকে হত্যাকারীদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করতে সক্ষম হবে বলে আশা করেন পুলিশ সুপার মো. সাইফুল ইসলাম।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর