শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১৮:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

অবৈধ চার ইটভাটাকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

ফরিদপুর প্রতিনিধি

অবৈধ চার ইটভাটাকে ৪ লাখ টাকা জরিমানা

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার অবৈধ চারটি ইটভাটায় যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর ও জেলা প্রশাসন। 

আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত এ অভিযানে অংশ নেন ফরিদপুর জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার মো. বায়েজিদুর রহমান ও পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক এ এইচ এম রাসেদ।

অভিযান চলাকালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অবৈধ চারটি ইটভাটায় ৪ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। সদরপুরের আকোটের চর ইউনিয়নে অবস্থিত মেসার্স ফকির ব্রিকসকে ১ লাখ টাকা, শ্যামপুরে অবস্থিত আর এ ব্রিকসকে ১ লাখ টাকা, মটুকচরে অবস্থিত এইচ বি এফ ব্রিকসকে ১ লাখ টাকা এবং মানিকদহে অবস্থিত মডার্ণ ব্রিকনকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। 

এছাড়া এসব ইটভাটার কার্যক্রম বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। অভিযান চলাকালে পুলিশ ও র‌্যাবের একটি টিম ছাড়াও পরিবেশ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক কাজী সাইফুদ্দিন ও পরিদর্শস মনিরুজ্জামান শেখ উপস্থিত ছিলেন।  

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:১৩
প্রিন্ট করুন printer

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি পারাপার বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি পারাপার বন্ধ
ফাইল ছবি

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রেখেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) কর্তৃপক্ষ। পদ্মা নদীতে কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে যাওয়ায় দুর্ঘটনা এড়াতে ফেরি পারাপার বন্ধ রাখা হয়। এতে করে বিপাকে পড়েছেন পদ্মা পারের জন্য অপেক্ষারত যাত্রীরা।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে ফেরি চলাচল বন্ধের তথ্য নিশ্চিত করেছেন বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের ম্যারিন ম্যানেজার আহমেদ আলী। 

তিনি জানান, মাঝ পদ্মায় কুয়াশার ঘনত্ব বেড়ে গেছে। ফলে ফেরির মার্কিং বাতির আলো অস্পষ্ট হয়ে আসায় দুর্ঘটনা এড়াতে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়েছে। মাঝ পদ্মায় দুইটি ফেরি মানুষ ও যানবাহন নিয়ে নোঙর করে আছে। কুয়াশার ঘনত্ব কমলে পুনরায় ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হবে। 

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

তফসিল ঘোষণা না হলেও ধামরাইয়ে জমে উঠেছে নির্বাচনের প্রচারণা

ধামরাই প্রতিনিধি


তফসিল ঘোষণা না হলেও ধামরাইয়ে জমে উঠেছে নির্বাচনের প্রচারণা

ঢাকার ধামরাইয়ে জমে উঠেছে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের প্রচারণা। তফসিল ঘোষণা না হলেও মাঠঘাট চষে বেড়াচ্ছেন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। কয়েকটি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী পরিবর্তন হতে পারে এমন ইঙ্গিত রয়েছে স্থানীয় নেতাকর্মীদের মাঝে। তাই নতুন মুখেরা দলীয় মনোনয়ন পেতে পারে এমন আশায় সম্ভাব্য প্রার্থীরা জোরেশোরে মাঠে কাজ করছেন। দলের মনোনয়ন পেতে তারা করছেন নানা তদবির। দিচ্ছেন ভোটারদের নানা প্রতিশ্রুতি। যোগ্যতা ফুটিয়ে তুলতে ব্যানার, ফেষ্টুন ও বিলবোর্ড টাঙাচ্ছেন দর্শনীয় স্থানে।

জানা গেছে, ধামরাইয়ের ১৬টি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যানগণ আবারও চেয়ারম্যান হতে দলের মনোনয়নের জন্য দলের হাই কমান্ডে যোগাযোগ করছেন। আর মরিয়া হয়ে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। এদিকে, প্রতি ইউনিয়নে কয়েকজন করে নতুন সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রচারণায় মাঠে নেমেছেন। তারা নিজ বলয়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে এলাকায় এলাকায় বিভিন্ন শোডাউন থেকে শুরু প্রতিটি বাড়িতে যেয়ে দোয়া চাচ্ছেন। নিজের অর্থে করে দিচ্ছেন এলাকার ছোটখাট উন্নয়ন কাজ। এতে নজরও কাড়ছেন ভোটারদের। তারা আশাবাদী আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাবেন তারা।

ধামরাইয়ের আওয়ামীলীগের কয়েকজন পদধারী শীর্ষ নেতা বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানিয়েছেন, ধামরাইয়ের ১৬ ইউনিয়নের মধ্যে যাদবপুরসহ কয়েকটি ইউনিয়নে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান দলীয় মনোনয়ন নৌকার টিকেট না পাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে অনেক বেশি। তাই ওই সব ইউনিয়নে নতুনরাই মনোনয়ন পেতে পারে। কিছু কিছু ইউনিয়নে নতুন মুখের দরকার।

ধামরাইয়ের সোমভাগ ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আজাহার আলী, সুতিপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম রাজা, সানোড়া ইউনিয়ন পরিষদের খালেদ মাসুদ খান লাল্টু জানান, এমপি বেনজীর আহমদের সার্বিক সহযোগিতায় আমরা নিজ ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়ন করেছি এবং করছি। আমাদের কর্মের উপর নির্ভর করে বলেই আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন আমরাই পাব।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন সম্ভাব্য প্রার্থী সাংবাদিকদের জানান, তারা দলীয় মনোনয়নের জন্য চেষ্টা করবেন। যদি দলীয় নৌকার টিকেট না পান তাহলে স্বতস্ত্র হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিতে পারেন তারা।


বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৩:৫০
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৬:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

ফেনীতে কারখানায় আগুন

ফেনী প্রতিনিধি

ফেনীতে কারখানায় আগুন
আগুনে প্রায় ৩০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে

ফেনীর কাশেমপুরে স্টার লাইন ফুড প্রোডাক্টের কারখানায় ভয়াবহ আগ্নিকাণ্ড হয়েছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৯টি ইউনিট। গতরাত  সাড়ে ১২টার দিকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। সকাল ৬টা পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়নি। 

আগুনে নুডুলস, সেমাই ও বিস্কুট ফ্যাক্টরী প্রায় পুরোপুরি পুড়ে গেছে। পরবর্তীতে গোডাউনেও আগুন লেগে যায়। 

স্টার লাইন গ্রুপের পরিচালক জাফর উদ্দিন জানান, আগুনে প্রায় ৩০ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। ফায়ার সার্ভিস আগুনের সূত্রপাত কোথায় থেকে হয়েছে এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমান এখনও জানাতে পারেনি।

কাগজের একটি বন্ধ গোডাউন থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে জানা যায়। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

 
 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০১:৩২
প্রিন্ট করুন printer

কুমিল্লার দেবিদ্বারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অবরুদ্ধ, গাড়ি ভাঙচুর

কুমিল্লা প্রতিনিধি

কুমিল্লার দেবিদ্বারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অবরুদ্ধ, গাড়ি ভাঙচুর

কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদসহ জেলা নেতারা অবরুদ্ধ রয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত পৌনে ১টায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তারা অবরুদ্ধ ছিরেন। 

ভাঙচুর করা হয়েছে প্রচারণার কয়েকটি গাড়ি। দেবিদ্বার উপজেলা সদরের মা-মনি হসপিটালের উপরে তিনতলার মিলনায়তনে তাদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। 

হাসপাতালের নিচে প্রতিপক্ষ অবস্থান নিয়ে ফাঁকা গুলি করছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। এতে রাত গভীরে উপজেলা সদরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ মোবাইল ফোনে জানান, এখানে তাদের কর্মিসভা ছিল। সেখানে বিএনপি-জামায়াতের লোকজন হামলা চালিয়েছে। তাদের তালা মেরে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। পুলিশের উপস্থিতিতে তাদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এনিয়ে ওসিকে জানালেও তিনি কোনো ভূমিকা নেননি।

এ বিষয়ে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী এ এফ এম তারেক মুন্সী বলেন, তাদের অবরুদ্ধ করার মতো অবস্থা আমাদের নেই। এটা তাদের দুই গ্রুপের সমস্যা।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমেদ বলেন, সেখানে দুই পক্ষের মধ্যে একটা সমস্যা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চলছে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ 

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২২:২৭
প্রিন্ট করুন printer

একই দোকানে দ্বিতীয়বার স্বর্ণালঙ্কার চুরি করতে এসে ধরা নারী মেম্বার

কুমিল্লা প্রতিনিধি

একই দোকানে দ্বিতীয়বার স্বর্ণালঙ্কার চুরি করতে এসে ধরা নারী মেম্বার

একটি ইউনিয়নের নারী সদস্যের নেতৃত্বে প্রথমবার স্বর্ণ চুরি করে পার পেয়ে গেলেও দ্বিতীয়বার ধরা খেলেন তিন সদস্যের চক্রটি। দোকান মালিকের সন্দেহ হওয়ায় তাদের আটক করে তল্লাশি চালাতে বের হয়ে আসে স্বর্ণালঙ্কার। পরে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে একমাস আগের চুরির সাথেও তাদের জড়িত থাকাটি নিশ্চিত হয় দোকানদার।

এমন ঘটনা ঘটেছে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা সদরে আপন অর্নামেন্টস নামক একটি জুয়েলারি দোকানে। পরে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলেন কক্সবাজার জেলার চকরিয়া থানার ঢেমুশিয়া ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান প্যানেল চেয়ারম্যান সংরক্ষিত নারী সদস্য মোসা. আরজ খাতুন (৫২), একই গ্রামের ফররুখ আহম্মদের ছেলে শাহাদত হোসেন (২০) ও কুমিল্লা নগরীর কালিয়াজুরি এলাকার রাসেল মিয়ার স্ত্রী পাখি বেগম (৩৫)। 


এ ঘটনায় দোকান মালিক জয়নাল আবেদীন আপন বাদী হয়ে তিনজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করলে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত ১৯ জানুয়ারি বেলা ১১টার দিকে দেবিদ্বার উপজেলা সদরের আপন অর্নামেন্টস নামক জুয়েলারি দোকান থেকে ৩ ভরি ওজনের ২টি স্বর্ণের চেইন, ১ জোড়া কানের দুল চুরি হয়। ওইদিন রাতে স্টক হিসেবে গড়মিল দেখে সিসিটিভি ফুটেজে নারী চোরের মাধ্যমে চুরির বিষয়টি নিশ্চিত হয় দোকান মালিক। কিন্তু তাদের হদিস পাওয়া যায়নি।

ঘটনার এক মাস পর গত ২২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে পুনরায় তারা এ দোকানে আসে। স্বর্ণের  গহনা ক্রয়ের কথা বলে গয়না ঘেটে দেখার একপর্যায়ে কৌশলে একটি নাকফুল ও একটি আংটি চুরি করে দোকান ত্যাগ করে। দোকানী স্বর্ণ গুছিয়ে রাখার সময় গহনা গড়মিল দেখে তাদের ডেকে এনে নাকফুল ও আংটি উদ্ধার করেন। পরে সিসিটিভির ফুটেজ দেখে আগের চুরির ঘটনায় তাদের সম্পৃক্ততা নিশ্চিত হয়।

দেবিদ্বার থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার জানান, সিসিটিভির ফুটেজ দেখে একমাস আগে চুরির ঘটনায় সম্পৃক্ততার প্রমাণ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দোকান মালিক বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর