শিরোনাম
প্রকাশ : ৩০ জুন, ২০২১ ১৭:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

দরপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

সখীপুরে আওয়ামী লীগ নেতা ও তার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি

সখীপুরে আওয়ামী লীগ নেতা ও তার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা
আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম নবু ও তার ছেলে লিঙ্কন মিয়া।
Google News

টাঙ্গাইলের সখীপুরে আওয়ামী লীগ নেতা নবু ও তার ছেলের বিরুদ্ধে বহেড়াতৈল ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত নারী সদস্যের হাত থেকে খেয়াঘাট ইজারার দরপত্র ছিনিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

পরে এ ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নজরুল ইসলাম নবু ও তার ছেলে লিঙ্কন মিয়ার বিরুদ্ধে ইউপি সদস্য রেনু আক্তার সখীপুর থানায় মামলা করেন। রেনু আক্তার বহেড়াতৈল ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত (৭, ৮, ৯) ওয়ার্ডের সদস্য।

জানা যায়, উপজেলার বহেড়াতৈল বাজার খেয়াঘাট এক বছরের জন্য ইজারা দেওয়ার লক্ষ্যে গত ২১ জুন দরপত্র আহ্বান করা হয়। শিডিউল কেনার সর্বশেষ তারিখ ছিল ২৮ জুন। ইজারা নেওয়ার জন্য শিডিউল কেনেন ইউপি সদস্য রেনু আক্তার। মঙ্গলবার দুপুর ১টা পর্যন্ত দরপত্র জমা দেওয়ার শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়।

এদিন বেলা ১১টায় আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলাম প্রথম দরপত্র জমা দেন। এরপর দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রেনু আক্তার দরপত্র জমা দিতে ইউএনও কার্যালয়ের সামনে আসেন। এসময় আওয়ামী লীগ নেতা  নজরুল ইসলাম নবু ও তার ছেলে লিঙ্কন মিয়া রেনু আক্তারের কাছ থেকে দরপত্র ছিনিয়ে নিয়ে চলে যান। রেনু আক্তার বিষয়টি পরক্ষণেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করেন।

এ ব্যপারে ইউপি সদস্য রেনু আক্তার বলেন, নবু ও তার ছেলে লিঙ্কন আমার হাত থেকে দরপত্রসহ সংশ্লিষ্ট কাগজপত্র কেড়ে নিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। আমি বাবা-ছেলেকে আসামি করে সখীপুর থানায় মামলা করেছি। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সখীপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. ছাইফুল ইসলাম।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নজরুল ইসলাম তাদের বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা চিত্রা শিকারী বলেন, এই ঘটনার কারণে খেয়াঘাটের ইজারার দরপত্র আপাতত স্থগিত করা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এমআই

এই বিভাগের আরও খবর