২১ জানুয়ারি, ২০২৪ ১৭:০০

ভাঙ্গায় সংঘর্ষে আহত বৃদ্ধের মৃত্যু

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি:

ভাঙ্গায় সংঘর্ষে আহত বৃদ্ধের মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

ফরিদপুরের ভাঙ্গায় চাচাতো ভাইদের সঙ্গে জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের এক মাস পর আহত বৃদ্ধ ফজলুল হক মাতুব্বর (৭৪) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত দশটার দিকে মারা গেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে ভাঙ্গা উপজেলার কাউলীবেড়া ইউনিয়নের পল্লীবেড়া গ্রামে। 

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে নিহত ফজলুল হক মাতুব্বরের সাথে তার  আপন চাচাতো ভাই তৈয়াব আলী মাতুব্বদের জমি জমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। সেই জের ধরে গত ২২ ডিসেম্বর দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় দুই পক্ষের পাঁচ জন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। আহতরা হলেন ফজলুল হক মাতুব্বর (৭৪) ও তার ছেলে ফরিদ মাতুব্বর (২৫)। অপর পক্ষের তৈয়াব আলী মাতুব্বর (৬০), সৈয়দ আলী মাতুব্বর (৫৫) সোহেল মাতুব্বর (২০)। 

কাউলীবেড়া ইউনিয়ন পরিষদের ৭ নং ওয়ার্ডের সদস্য ও পল্লীবেড়া গ্রামের বাসিন্দা মিজানুর রহমান জানান, দুই পক্ষের মধ্যে বাড়ির জমি নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত বিরোধ চলে আসছে। ডিসেম্বররের ২য় সপ্তাহে এলাকাবাসীর মধ্যস্থতায় সরকারি আমিন দিয়ে জমি মাপার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। ডিসেম্বরের শেষ দিকে জমি মাপার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। তার আগেই দুই পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে দুই পক্ষের কয়েকজন আহত হয়। এর মধ্যে ফজলুল হক মাতুব্বরের হাতে ও পিঠে কোপ লাগে। এ ছাড়া তার শরীরে লাঠি দিয়ে পেটানোর চিহ্ন ছিল। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সেখান থেকে একটি ঢাকার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়।    

২২ ডিসেম্বর সংঘর্ষের পরে ভাঙ্গা থানায় দুই পক্ষই মামলা করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ভাঙ্গা থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এস আই) অমিয় মজুমদার জানান, শনিবার রাতে ফজলুল হক মাতুব্বর হাসপাতালে মারা যান। মৃত্যুর খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তৈয়ব আলীর বাড়ি ভাঙচুর এর ঘটনা ঘটে। এলাকায় পুলিশ মোতায়ন রয়েছে। নিহত ফজলুল হকের লাশের ময়নাতদন্ত ঢাকা থেকেই হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পরে যে ধারা হবে সেই ধারা মামলার সঙ্গে যোগ হবে। এলাকায় বর্তমানে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এএ

সর্বশেষ খবর