শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ জানুয়ারি, ২০২১ ২৩:৪৯

কক্সবাজারের উন্নয়ন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের উদ্যোগ নিন

কক্সবাজারকে বলা হয় দেশের পর্যটনের রাজধানী। বিশ্বের বৃহত্তম সমুদ্রসৈকতের অধিকারী কক্সবাজার দেশের অর্থনীতিরও অন্যতম কেন্দ্রে পরিণত হতে চলেছে। বর্তমান সরকার আমলে অবকাঠামোগত দিক থেকে পিছিয়ে পড়া এ এলাকার উন্নয়নে যে কর্মযজ্ঞ শুরু হয়েছে তা এক কথায় বিশাল। কক্সবাজার ঘিরে নেওয়া হয়েছে ২৫টি মেগাসহ ৭৭টি উন্নয়ন প্রকল্প। এসব প্রকল্পের মধ্য দিয়ে কক্সবাজার দেশের অন্যতম অর্থনৈতিক কেন্দ্রে পরিণত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। দ্রুত এগিয়ে চলা এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে কক্সবাজার হবে একটি উন্নত ও পরিপূর্ণ পর্যটননগর। ৭৭টি উন্নয়ন প্রকল্পে ৩ লাখ কোটি টাকার বেশি বিনিয়োগ করা হচ্ছে। এ জন্য অধিগ্রহণ করা হয়েছে প্রায় ১৪ হাজার একর জমি। আর জমি অধিগ্রহণে ক্ষতিপূরণ ধরা হয়েছে ৫ হাজার ৬৯৪ কোটি ৬১ লাখ ৪৭ হাজার ৯৮৩ টাকা। এর মধ্যে ৩ হাজার ৬১০ কোটি ৪৮ লাখ ৫০ হাজার ৪৬৩ টাকার চেক ক্ষতিগ্রস্তদের কাছে প্রদান করা হয়েছে। জমি অধিগ্রহণে ক্ষতিপূরণের চেক হস্তান্তরে নেওয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা। কক্সবাজারে অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপিত হলে কলকারখানার জন্য কাঁচামাল ও মূলধনি পণ্য আমদানিতে সুবিধা পাওয়া যাবে। পণ্য রপ্তানিতেও মিলবে বাড়তি সুবিধা। চট্টগ্রাম বন্দর যেমন এ অঞ্চলের কাছে তেমন মাতারবাড়ীতে দেশের যে গভীর সমুদ্রবন্দর স্থাপন করা হচ্ছে তার অবস্থানও কাছে। ফলে কক্সবাজারে শিল্প স্থাপনে বিদেশি বিনিয়োগকারীরা বিশেষ আগ্রহ দেখাবে বলে আশা করা যায়। কক্সবাজারের সঙ্গে চট্টগ্রামের রেল যোগাযোগ স্থাপনের কাজও এগিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এর ফলে কক্সবাজার থেকে সারা দেশে পণ্য পাঠানো সহজতর হবে। কক্সবাজারে অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপন হলে ওই অঞ্চলের সাধারণ মানুষের জীবনমানের উন্নতি ঘটবে। তবে একই সঙ্গে কক্সবাজারের উন্নয়নের স্বার্থে রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসন নিশ্চিত করাও জরুরি।


আপনার মন্তব্য