শিরোনাম
মঙ্গলবার, ২৮ জুন, ২০২২ ০০:০০ টা

পদ্মা সেতুর সুরক্ষা

নিরাপস ভূমিকা কাম্য

পদ্মা সেতু ১৮ কোটি বাঙালির জাতিরাষ্ট্র বাংলাদেশের মর্যাদার প্রতীক। এ মর্যাদা প্রশ্নবিদ্ধ করার প্রয়াস শুরু হয়েছে যানবাহনের জন্য সেতু উন্মুক্ত করার প্রথম দিন থেকে। পদ্মা সেতুকে বেপরোয়া রেসিং গ্রাউন্ড বানাতে গিয়ে মারাও গেছেন দুই মোটরসাইকেল আরোহী যুবক। টিকটকের আড়ালে দেশ ও জাতির অহংকারকে অপমানিত করার সুস্পষ্ট উদ্দেশ্য নিয়ে পদ্মা সেতুর স্টিল ব্যারিয়ারের নাট খুলে ব্যাপক বিতর্কের জন্ম দিয়েছে এক যুবক। সোশ্যাল মিডিয়ায় আরেক যুবক সেতুতে উঠে মূত্র বিসর্জন করে সমালোচনার ঝড় তুলেছে। প্রথম দিনই বিআরটিসি বাসের ধাক্কায় মাওয়া প্রান্তে টোল প্লাজার দুটি ব্যারিয়ার ভেঙে গেছে। ঘটেছে বিভিন্ন নির্মাণসামগ্রী চুরিও। দেশের মানুষের অহংকার পদ্মা সেতুর রক্ষাব্যবস্থা নিয়ে স্বভাবতই প্রশ্ন উঠেছে। নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে শুরুতেই সরকারকে কঠোর হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। ইতোমধ্যে মোটরসাইকেল চলাচল পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। নামানো হচ্ছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। রবিবার ভোরে যানবাহন চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় পদ্মা সেতু। প্রথম দিনই শুরু হয় নিয়ম ভাঙার হিড়িক। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সেতুতে নেমে ছবি তোলা বা ভিডিও করার মচ্ছব পড়ে যায়। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর সমালোচনার ঝড় ওঠে। অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি ওঠে দেশজুড়ে। এর পরই সেতুতে নামার ক্ষেত্রে কড়াকড়ি আরোপ করে সেতু বিভাগ। আটক করা হয় নাট খুলে ভাইরাল হওয়া যুবককে। দুষ্কর্মের জন্য সেতুতে আসা অন্যদেরও খোঁজা হচ্ছে। আমরা আশা করব পদ্মা সেতুর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে যারা অঘটন ঘটিয়ে কৃতিত্ব দেখানোর চেষ্টা করেছে তাদের সবাইকে চিহ্নিত এবং আইনের আওতায় আনা হবে। মোটরসাইকেল চলাচল তাৎক্ষণিকভাবে নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত প্রশংসার দাবিদার। ভবিষ্যতে মোটরসাইকেল চলাচলের অনুমতি দিলেও সেখানে কঠিন শর্ত ও সতর্কতা থাকতে হবে।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর