Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২১ মে, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ মে, ২০১৬ ২৩:৩৪

রাজপথে শপথ নেবেন মমতা জয়ললিতার ঘরে উৎসব

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

রাজপথে শপথ নেবেন মমতা জয়ললিতার ঘরে উৎসব
মমতা - জয়ললিতা

পশ্চিমবঙ্গ বিধান সভায় বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে বিজয়ী তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগামী ২৭ মে কলকাতার রেড রোডে শপথ নিচ্ছেন। নতুন মন্ত্রিসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে এরই মধ্যে মহাব্যস্ততা শুরু হয়ে গেছে।  অন্যদিকে তামিলনাড়ুতে ‘আম্মা’ খ্যাত জয়ললিতার বিজয়ে সেখানেও ঘরে ঘরে চলছে উৎসব। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টা থেকে চেন্নাইয়ে জয়ললিতার বাড়ি এবং বাড়ির সামনে হাজার হাজার সমর্থক বিজয়-উল্লাস করেন। দিনভর চলে উৎসব।

মমতার শপথে থাকছেন কারা : প্রথা ভেঙে এবারই প্রথম রাজভবনের বদলে রাজপথে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানের স্থান করা হয়েছে। বেশি সংখ্যক মানুষকে এই ঐতিহাসিক জয়ের সঙ্গী করতেই মমতা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নতুন মন্ত্রিসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে কোন কোন অতিথি আমন্ত্রিতদের তালিকায় থাকবেন- তা নিয়ে এরই মধ্যে নানা কৌতূহল তৈরি হয়েছে। যদিও কালীঘাট সূত্রের খবরে বলা হচ্ছে, আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদবের মতো রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বকে। তাদের কাছে আমন্ত্রণপত্রও পাঠানো হয়েছে বলে জানা গেছে। পাশাপাশি এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রের কয়েকজন ব্যক্তিকেও আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। এ তালিকায় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভুটানের রাজা জিগমে কেশর নামগিল ওয়াংচুককের কথা আলোচনা হচ্ছে। যদিও গতকাল পর্যন্ত এ বিষয়ে নিশ্চিত করে কেউ কিছু জানাতে পারেননি। রাজনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, তৃণমূল কংগ্রেসের বিধান সভার পরিষদীয় দলের নেত্রী হিসেবে সর্বসম্মতভাবে নির্বাচিত হয়েছেন দলের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল সকালে কালীঘাটে দলের নবনির্বাচিত বিধায়কদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মমতা। সেখানেই মমতাকে পরিষদীয় দলনেত্রী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়। এরপর প্রথা মেনেই কালীঘাট থেকে তিনি সোজা চলে যান রাজভবনে। তার সঙ্গে যান দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সংসদ সদস্য মুকুল রায়, সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সী, সুব্রত মুখোপাধ্যায়রা। রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন মমতা। সেখানে প্রায় ২০ মিনিট বৈঠক করেন তিনি। রাজ্যপাল ভাবী মুখ্যমন্ত্রীকে বিপুল জয়ের জন্য শুভেচ্ছা জানান। সব শেষে রাজ্যপালের কাছে সরকার গঠনের দাবি জানান তৃণমূল নেত্রী। এ সাক্ষাতের পর বেরিয়ে এসে মমতা বলেন, পাঁচ বছর আগে ২০ মে এই দিনটিতেই প্রথমবার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলাম। তাই এ দিন রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলাম।

জয়ললিতার জয়ে উৎসব : প্রবল সরকারবিরোধী হাওয়া, বুথ ফেরত জরিপ— সবকিছুকে পেছনে ফেলে তামিলনাড়ুর মসনদে আবারও বসছেন ‘আম্মা’ খ্যাত জে জয়ললিতা। রাজনীতির ইতিহাসে গত ৩২ বছরের মধ্যে তিনিই প্রথম মুখ্যমন্ত্রী, যিনি ধারাবাহিকভাবে ফের এই পদে বসতে যাচ্ছেন। তাই তার শপথ গ্রহণ এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র। বিজয়ের আনন্দে গতকাল জয়ললিতা বলেছেন, আমার অভিধানে এর ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। তবে এ জন্য আমি রাজ্যের জনগণের প্রতি আমার শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করছি। তিনি বলেন, আমার এ জীবনে আর কোনো স্বার্থ নেই। স্বার্থ শুধু এখানকার মাটি ও মানুষের জন্য কাজ করে যাওয়া। উল্লেখ্য, তামিলনাড়ুতে ২৩৪টি আসনের মধ্যে ১৪০টি আসন এককভাবে দখল করেছে জয়ললিতার এআইএডিএমকে। ৮০টি আসনে জয়লাভ করেছে ডিএমকে-কংগ্রেস জোট।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর