শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৫ এপ্রিল, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ এপ্রিল, ২০১৭ ২৩:৩৬

দুর্বলের ওপর সবল দেশের হস্তক্ষেপ চলবে না

আইপিইউ সম্মেলনে প্রস্তাব পাস

নিজস্ব প্রতিবেদক


দুর্বলের ওপর সবল দেশের হস্তক্ষেপ চলবে না

দুর্বল দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে সবল দেশের হস্তক্ষেপ বন্ধে একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) সম্মেলনে। প্রস্তাবটি ৪৪-১০ ভোটে পাস হয়। আইপিইউর পাঁচ দিনের সম্মেলনের গতকাল চতুর্থ দিনে পাস হয়। আজ বুধবার সম্মেলনের শেষ দিনে এটি গৃহীত হওয়ার কথা রয়েছে। প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দেওয়া দেশগুলো হলো : যুক্তরাজ্য, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, ফিনল্যান্ড, তুরস্ক, ইউক্রেন, আইসল্যান্ড, নরওয়ে প্রমুখ। বেলজিয়াম ভোটদানে বিরত ছিল। বিশ্বের সর্বোচ্চ সংসদীয় ফোরাম আইপিইউর ১৩৬তম সম্মেলন গত শনিবার ঢাকায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হয়েছে।

আইপিইউর ইতিহাসে এই প্রথম সার্বভৌম দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ বন্ধে এমন প্রস্তাব গ্রহণ করা হলো। প্রস্তাবটি নিয়ে সম্মেলনে অংশ নেওয়া উন্নত এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোর মধ্যে মতবিরোধ তৈরি হয়েছিল। টানা তিন দিন আইপিইউর শান্তি ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তাবিষয়ক উপকমিটির বৈঠকে প্রস্তাবের পক্ষে-বিপক্ষে তুমুল বিতর্ক হয়েছে। এ ছাড়া দুর্ভিক্ষ পীড়িত আফ্রিকা ও ইয়েমেনের মানুষের পাশে দাঁড়ানোসহ অপর দুটি প্রস্তাবের খসড়ায় অনুমোদন দিয়েছে সংশ্লিষ্ট স্টান্ডিং কমিটি। আজ বুধবার সম্মেলনের শেষ দিনে আইপিইউ-এর সাধারণ অধিবেশনে এসব প্রস্তাব পাস হলে তা ঢাকা ঘোষণার অন্তর্ভুক্ত হবে। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটি সভাপতি মেক্সিকোর এমপি এল রোজেস। ডা. দীপু মনি বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, এই প্রস্তাবের ওপর বিভিন্ন দেশ ১৪৩টি সংযোজনী প্রস্তাব দিয়েছিল। মূল প্রস্তাবের সঙ্গে সংগতিপূর্ণ প্রস্তাবগুলো গৃহীত হয়েছে। অনেকে নিজেদের প্রস্তাব ফিরিয়ে নিয়েছেন। এ ছাড়া গতকাল আইপিইউর চারটি স্থায়ী কমিটিতে আলোচনা শেষে এমপিদের মানবাধিকার রক্ষা, বৈশ্বিক নিরাপত্তা ও শান্তি, বৈশ্বিক জঙ্গিবাদ নিরসন, বৈষম্য নিরসনের উপায় ও উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের বিষয়ে খসড়া প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে। এর মধ্যে সাধারণ অধিবেশনে পাস হওয়া বিষয় ঢাকা ঘোষণায় স্থান পাবে। অন্যগুলো আগামী অক্টোবরে রাশিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য ১৩৭তম সম্মেলনে স্থান পাবে। এ বিষয়ে আইপিইউ প্রেসিডেন্ট সাবের হোসেন চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, সম্মেলনের মূল বিষয় ছিল বিশ্বব্যাপী নানা ধরনের বৈষম্য নিরসনে কার্যকর ভূমিকা পালন করা। আর গত চার দিন ধরে আইপিইউ-এর চারটি স্থায়ী কমিটিতে এসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। ইয়েমেন, দক্ষিণ সুদান, সোমালিয়া ও উত্তর কেনিয়ার তীব্র খরায় কবলে পড়া দুর্ভিক্ষ পীড়িত মানুষের সাহায্যে দ্রুত এগিয়ে আসার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইন্টার পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন। তিনি জানান, গত চার দিন মোট ১১টি বিষয় নিয়ে চারটি স্টান্ডিং কমিটিতে আলোচনা হয়। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বৈষম্য নিরসন হলে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ নিরসন সহজ হয়ে যাবে। বৈষম্য নিরসন বিষয়ে চার দিন ধরে বিভিন্ন রাষ্ট্র আলোচনা করে একটি সিদ্ধান্তে আসার চেষ্টা করছে। আর তা হলো কীভাবে বৈষম্য নিরসন করা যাবে। এ ছাড়া সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ নিরসনে আইপিইউ-এর গভীরে যেতে চাইছে। এটা এখন বৈশ্বিক বিষয়। সেন্টস পিটার্সবার্গের বোমা হামলার বিষয়ে আইপিইউর সম্মেলন থেকে নিন্দা জনানো হয়েছে। এ ছাড়া নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়েছে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কমিটিতে আলোচনা করে একটি খসড়া চূড়ান্ত করা হবে। পরবর্তী সম্মেলনে এ বিষয়ে প্রস্তাব নেওয়া হতে পারে।

দুর্ভিক্ষ পীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান : দুর্ভিক্ষ ও অনাবৃষ্টি কবলিত আফ্রিকা ও ইয়েমেনের লাখ লাখ মানুষের সহায়তায় বিশ্ব সম্প্রদায়কে দ্রুত এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছে ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ)। ঢাকায় চলমান বিশ্বের সবচেয়ে বড় এ সংসদীয় ফোরামের সম্মেলনে গতকাল এ বিষয়ে একটি ‘জরুরি প্রস্তাব’ পাস হয়। বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্য ও কেনিয়ার পক্ষ থেকে প্রস্তাবটি তোলা হয়। দুর্ভিক্ষ নিয়ে প্রস্তাবে বলা হয়, ইয়েমেন, দক্ষিণ সুদান, সোমালিয়া ও উত্তর কেনিয়ায় চলমান দুর্ভিক্ষ চরম মানবিক বিপর্যয় ডেকে আনতে পারে।

 


আপনার মন্তব্য