Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:০৪

প্রয়োজনে নিজে ওসিগিরি করব

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রয়োজনে নিজে ওসিগিরি করব

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও সেবা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনে থানায় ওসিগিরি করার ঘোষণা দিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) নবনিযুক্ত কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম। তবে এর আগে জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের পর্যায়ক্রমে নিয়মিত থানায় গিয়ে বসার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া, ঢাকার ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে ও যানজট সহনীয় পর্যায়ে আনতে ডিএমপির ট্রাফিক           বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি), অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) ও সহকারী কমিশনারসহ (এসি) সব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের মাঠে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথমবারের মতো ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে গতকাল আয়োজিত মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার এসব কথা বলেন। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম, আবদুল বাতেন, কৃষ্ণপদ রায়সহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

শফিকুল ইসলাম বলেন, ডিএমপির জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা থানায় বসে সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলবেন। থানায় গিয়ে নির্যাতনের শিকার মানুষ যেন হয়রানি ছাড়া সাধারণ ডায়রি (জিডি) বা মামলা করতে পারেন সেই ব্যবস্থা করব। থানা থেকে ফেরার পথে যেন মানুষের মধ্যে এমন আস্থা জন্মায় যে, আমি সম্পদ ও সম্মান ফিরে পাব। থানাগুলোকে জনমুখী করতে, প্রয়োজনে নিজে থানায় গিয়ে ওসিগিরি করার ঘোষণা দেন তিনি। কমিশনার বলেন, শুধু সার্জেন্ট ও টিআইর ওপর নির্ভর করে থাকলে চলবে না। ঢাকার যানজট সহনীয় পর্যায়ে রাখতে ব্যস্ততম সময় বিশেষ করে সকালে অফিস শুরুর ঘণ্টা তিনেক ও অফিস ছুটির সময় ঘণ্টা তিনেক রাস্তায় থাকতে হবে। ডিসি থেকে শুরু করে ট্রাফিক বিভাগের সব সদস্যকেই মাঠে থাকতে হবে। তিনি আরও বলেন, কর্মকর্তাদের বলেছি, আমার নির্দেশনা যদি প্রতিফলিত না হয় তাহলে প্রোগ্রাম করে সুনির্দিষ্ট ট্রাফিক পয়েন্টগুলোতে আট ঘণ্টা করে ডিউটি বণ্টন করে দেব। ডিএমপি কমিশনার বলেন, ঢাকার ট্রাফিক শৃঙ্খলা রক্ষায় আমি অত্যন্ত কঠোর থাকব। যাদের ওপর ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তাদেরকেও মনিটরিং করা হবে। আমাদের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারাও কাজ করবেন। তিনি বলেন, রাস্তায় খোঁড়াখুঁড়ি, রাস্তা নির্মাণ ও নতুন নতুন গাড়ি বাড়ছে। একটি পরিকল্পিত শহরের জন্য যে পরিমাণ রাস্তা থাকা দরকার তার ধারে কাছেও আমরা নেই। আমরা এতটুকু বলতে পারি, এরপরও যানজট সহনীয় পর্যায়ে আনা হবে। ডিএমপি কমিশনার বলেন, সবাই যেন জেব্রা ক্রসিং ব্যবহার করেন সেটি নিশ্চিত করতে হবে। নিজের গাড়িটা আগে জেব্রা ক্রসিংয়ের আগে বন্ধ করে সচেতনতামূলকভাবে জেব্রা ক্রসিং ব্যবহারে কাজ করব। মানুষ যেন পার হতে পারে সে ব্যাপারে কাজ করব। আসলে আমরা কেউ আইন মানতে চাই না। আইন মানতে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান তিনি। সাংবাদিকরা রাজধানীর লালবাগের একজন মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি দখলের ঘটনা তুলে ধরে বলেন, ওই ঘটনার পর ডিসিকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। কিন্তু ওসিকে তার পদে বহাল রেখে বিভাগীয় মামলা হয়। কাগজপত্র দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার।


আপনার মন্তব্য