শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৪২

বাসে নারীদের চলাচল

বিপদ এড়াতে ৯ পরামর্শ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিপদ এড়াতে ৯ পরামর্শ

গণপরিবহনে মেয়েদের প্রায়ই শারীরিক কিংবা মানসিক নির্যাতনের শিকার হতে হয়। তাই গাড়িতে নিরাপদে চলাচলের জন্য মেয়েদের কিছু পরামর্শ দিয়েছে বাংলাদেশ পুলিশ সদর দফতরের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগ। এই পরামর্শগুলোর মধ্যে আছে- কোনো গাড়িতে যাত্রীসংখ্যা পাঁচ থেকে সাতজনের কম হলে সেই গাড়িতে ভ্রমণের বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। নারী যাত্রীকে অধিক যাত্রীসংবলিত গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে হবে। নারী যাত্রী যতই ক্লান্ত থাকুন না কেন একা ভ্রমণের সময় গাড়িতে কিছুতেই ঘুমানো যাবে না। গাড়িতে উঠার সময় গাড়ি যাত্রীতে পূর্ণ থাকলেও বিভিন্ন স্টপেজে যাত্রী নামতে নামতে যদি যাত্রীসংখ্যা ১০-এর কাছাকাছি পৌঁছে যায়, তাহলে গাড়ি থেকে নামার আগ পর্যন্ত অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে গাড়ির এমন কোনো সুবিধাজনক সিটে বসতে হবে যে স্থান থেকে গাড়ির হেলপার, কন্ডাক্টর ও ড্রাইভারসহ অন্যান্য যাত্রীর ওপর সজাগ দৃষ্টি রাখা সম্ভব। প্রয়োজনে পরিবারের কাউকে অথবা নির্ভরযোগ্য কাউকে মোবাইল ফোনে কল করে একটু উচ্চশব্দে (গাড়ির ভিতর থাকা অন্য যাত্রীদের শুনিয়ে শুনিয়ে) গাড়ির নাম, বর্তমান অবস্থান এবং গন্তব্যস্থল সম্পর্কে জানিয়ে রাখা যেতে পারে। এমনকি সে মুহূর্তে গাড়িতে কতজন যাত্রী অবস্থান করছে তার সংখ্যা এবং গাড়ির স্টাফসহ যাত্রীদের সংক্ষিপ্ত বিবরণও জানিয়ে রাখা যেতে পারে। এতে গাড়ির ভিতরে থাকা কারও মনে কোনো অসৎ চিন্তা ও পরিকল্পনা থাকলে তারা ভয় পাবে। কোনো স্টপেজে যাত্রীসংখ্যা আরও কমে পাঁচের নিচে চলে আসার উপক্রম হলে সেটি গন্তব্যস্থল না হলেও অন্য যাত্রীদের সঙ্গে সেই স্টপেজেই নেমে পড়তে হবে এবং পরিবারের কাউকে মোবাইল কল করে সেখানে এসে নিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করতে হবে। যাত্রীকে নিতে আসা ব্যক্তিটি ওই স্থানে না আসা পর্যন্ত যাত্রীদের মধ্যে থাকা নির্ভরযোগ্য কাউকে সেই স্থানে অবস্থান করার জন্য অনুরোধ করা যেতে পারে। আর কেউ সাহায্য করতে না চাইলে কিংবা অনিরাপদ বোধ করলে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে কল করে পুলিশের সাহায্য নেওয়া যেতে পারে। এছাড়া গাড়িতে যাত্রীর সংখ্যা পাঁচের কাছাকাছি থাকা অবস্থায় গাড়ির ভিতরে কারও মধ্যে অস্বাভাবিক কোনো চঞ্চলতা লক্ষ্য করলে এবং প্রয়োজন ছাড়াই গাড়ির দরজা এবং জানালা বন্ধ করে দিতে দেখলে দেরি না করে সঙ্গে সঙ্গে জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে কল করে পুলিশের সাহায্য নিতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর