শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:০৯

তিন বন্দুকযুদ্ধে চারজন নিহত

প্রতিদিন ডেস্ক

তিন বন্দুকযুদ্ধে চারজন নিহত

দিনাজপুর, পাবনা ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে কথিত বন্দুকযুদ্ধে গতকাল চারজন নিহত হয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, নিহতদের মধ্যে রয়েছেন দিনাজপুরের দুই ডাকাত রফিকুল ইসলাম ও ওয়াজেদ হোসেন, পাবনার সন্ত্রাসী হাব্বান মন্ডল ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের তরিকুল ওরফে সাদ্দাম। আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর- দিনাজপুর : দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে কথিত বন্দুকযুদ্ধে রফিকুল ইসলাম (২৮) ও ওয়াজেদ হোসেন (৩০) নামে দুজন নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, তারা সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্য। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে কিছু গুলির খোসা ও একটি দেশীয় পিস্তল উদ্ধার করেছে। এ সময় নবাবগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) সামসুল ইসলাম, এসআই রিমেল মানিক, কনস্টেবল তুষার ও কাদের নামে চার পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। তিনি জানান, বুধবার দিবাগত ভোররাতে নবাবগঞ্জের শালখুড়িয়াা ইউনিয়নের ছোট মাগুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রফিকুল গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার মোহাম্মদ আলীর ছেলে ও ওয়াজেদ দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের হামিদ আলীর ছেলে। নবাবগঞ্জ থানার ওসি অশোক কুমার চৌহান জানান, এ দুই ডাকাতকে গত বুধবার সন্ধ্যায় গাইবান্ধা ও পীরগঞ্জ থেকে আটক করা হয়।

পরে তাদের দেওয়া তথ্যানুযায়ী নবাবগঞ্জের ছোট মাগুরা গ্রামে অস্ত্র উদ্ধারে গেলে সেখানে ওত পেতে থাকা ডাকাতরা পুলিশের ওপর গুলি ছোড়ে। রফিকুল ও ওয়াজেদকে ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে তারা। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও কয়েক রাউন্ড গুলি চালায়। এক পর্যায়ে ডাকাতরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে রফিকুল ও ওয়াজেদের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত দুই ডাকাতের বিরুদ্ধে নবাবগঞ্জসহ কয়েকটি থানায় ৫-৬টি করে ডাকাতি, ছিনতাই, মাদকের মামলা রয়েছে।

পাবনা : পাবনায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে হাব্বান মন্ডল নামে একজন নিহত হয়েছেন। তিনি সদর উপজেলার দক্ষিণ রামচন্দ্রপুর মন্ডলপাড়া গ্রামের মৃত হায়দার আলীর ছেলে। পুলিশের দাবি, হাব্বান একজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে হত্যা, অস্ত্রসহ বিভিন্ন আইনে ১২টি মামলা রয়েছে।

পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম জানান, সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চরশিবরামপুর স্লুইসগেট-সংলগ্ন জনৈক বাবুলের কলাবাগানে একদল সন্ত্রাসী অস্ত্রসহ অবস্থান করছে- এমন সংবাদের ভিত্তিতে বুধবার রাত ২টার দিকে সেখানে অভিযানে যায় পুলিশ। টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে। এ ঘটনায় একজন নিহত হন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে ছয় বছরের শিশু রিমা ধর্ষণ ও হত্যাকারী তরিকুল ওরফে সাদ্দাম (৩৫) পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন। সাদ্দাম সদর উপজেলার চরবাগডাঙ্গা গ্রামের নোমানের ছেলে।

গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সদর উপজেলার শাহজাহানপুর ইউনিয়নের হরিশপুরে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) ফজল-ই-খুদা জানান, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার সময় সদর উপজেলার আলাতুলী ইউনিয়নের বকচর সীমান্ত থেকে তাকে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) আটক করে। তাকে নিয়ে আসার সময় সাড়ে ৭টার দিকে হরিশপুরে সাদ্দামের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষণ করলে পুলিশও গুলি চালায়। এ সময় সাদ্দামের বুকে গুলি বিদ্ধ হলে তাকে আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। কিন্তু কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।


আপনার মন্তব্য