শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৩ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুলাই, ২০২১ ২৩:৩০

বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহন শপিং মল খোলা

নিজস্ব প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার থেকে গণপরিবহন শপিং মল খোলা
Google News

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলমান বিধিনিষেধ ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত শিথিল করা হবে। ২৩ জুলাই থেকে ফের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হবে। গতকাল তথ্য অধিদফতরের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা (পিআইও) সুরথ কুমার সরকার স্বাক্ষরিত এক তথ্য বিবরণীতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, করোনা মহামারীর বিস্তার রোধকল্পে বিভিন্ন বিষয়ে সরকার আরোপিত বিধিনিষেধ ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত শিথিল করা হবে। এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে মঙ্গলবার (আজ) প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। তবে ২৩ জুলাই থেকে ফের কঠোর বিধিনিষেধ জারি করা হবে।

এদিকে ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত বিধিনিষেধ শিথিলের কারণে এই সময়ে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে গণপরিবহন। খোলা থাকবে শপিং মল, দোকানপাট। গতকাল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগসূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। ১৫ জুলাই থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে বলে জানিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। আর অনলাইন টিকিট বিক্রি শুরু হবে মঙ্গলবার (আজ)। কোরবানি ঈদে মানুষের চলাচল ও পশুর হাটে কেনাবেচা বিবেচনায় এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। এই সময়ে সরকারি অফিস চলবে ভার্চুয়ালি। তবে বন্ধ থাকবে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

অন্যদিকে ১৭ জুলাই থেকে ঈদের দিন ২১ জুলাই পর্যন্ত পাঁচ দিন রাজধানী ঢাকায় পশুর হাট বসবে।

শ্রমজীবী মানুষসহ জীবিকার দিক বিবেচনা করে ঈদের আগে বিধিনিষেধ শিথিল হচ্ছে বলে সরকারি সূত্রগুলো জানিয়েছেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ১ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ চলছে। প্রথমে ৭ জুলাই পর্যন্ত তা থাকলেও পরে আরও এক সপ্তাহ বাড়ানো হয়, যা ১৪ জুলাই শেষ হওয়ার কথা। এবার যে বিধিনিষেধ চলছে তাতে সব সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস, শপিং মল, মার্কেটসহ সব ধরনের দোকানপাট বন্ধের নির্দেশ রয়েছে। সড়ক, রেল ও নৌ পথে গণপরিবহনসহ সব ধরনের যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা আছে। এ রকমভাবে মোট ২১ ধরনের বিধিনিষেধ চলছে।

১৭ জুলাই রাজধানীতে বসবে পশুর হাট

১৭ জুলাই থেকে ঈদের দিন ২১ জুলাই পর্যন্ত পাঁচ দিন রাজধানী ঢাকায় কোরবানির পশুর হাট বসবে। ইজারাদাররা পশু বিক্রি শুরুর দুই দিন আগে এ হাটগুলোর প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ পাবেন। দুই সিটি করপোরেশনের ইজারা দেওয়া ১৯টি অস্থায়ী হাটের ইজারাদারদের এ শর্ত দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া হাট পরিচালনার জন্য আরও ৪৬টি শর্ত মানতে হবে তাদের। গতকাল দুই সিটি করপোরেশনসূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন গণমাধ্যকে বলেছেন, ‘আমরা ইজারাদারদের পশু বিক্রির জন্য পাঁচ দিন সময় দিয়েছি। যেহেতু ২১ জলাই পবিত্র ঈদুল আজহা সেহেতু ১৭ জুলাই থেকে তারা পশু বিক্রি করতে পারবেন। আর ১৫ জুলাই থেকে পশুর হাটের প্রস্তুতি নিতে পারবেন।’

এদিকে উত্তর সিটির প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হক বলেছেন, ‘আমাদের একটি স্থায়ীসহ মোট ১০টি কোরবানির পশুর হাট বসবে। এ হাটগুলো ঈদের দিনসহ তার আগের পাঁচ দিন বসবে। অর্থাৎ ১৭ জুলাই হাটে বিক্রি শুরু হবে। এজন্য সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি পালন করতে হবে।’

১৫ জুলাই থেকে চলবে ট্রেন, মঙ্গলবার থেকে অনলাইনে টিকিট : করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে ঈদের আগে বিধিনিষেধ শিথিলে তিন সপ্তাহ বাদে আবার ট্রেন চলা শুরু হতে যাচ্ছে। ১৫ জুলাই থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক আসন ফাঁকা রেখে যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে বলে জানিয়েছে রেলপথ মন্ত্রণালয়। আর অনলাইনে টিকিট বিক্রি শুরু হবে আজ। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে চলমান লকডাউন ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত শিথিলের ঘোষণা আসার পর রেলপথ মন্ত্রণালয়ও ট্রেন চালুর সিদ্ধান্ত জানায়।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরিফুল আলম গত রাতে গণমাধ্যমে বলেন, ১৫ থেকে ২২ জুলাই যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে। কতটি ট্রেন কোন রুটে চলবে পরে জানানো হবে। আজ বিকালে টিকিট বিক্রি শুরু হবে জানিয়ে শরিফুল আলম বলেন, টিকিট শুধু অনলাইনে পাওয়া যাবে। কাউন্টারে কোনো টিকিট দেওয়া হবে না। করোনাভাইরাস সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ২২ জুন ঢাকা থেকে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে রেলপথ মন্ত্রণালয়।

এই বিভাগের আরও খবর