শুক্রবার, ২২ জুলাই, ২০২২ ০০:০০ টা

নারায়ণগঞ্জে স্কুলশিক্ষককে হাতুড়িপেটা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের বিজ্ঞান শিক্ষক মশিউর রহমানকে সন্ত্রাসীরা হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর জখম করেছে। বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় শহরের আমলাপাড়া ৪৬/১০ কেবি সাহা রোডের নিজ বাড়িতে ওই শিক্ষকের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে সদর থানায় গতকাল মামলা হয়েছে।

জানা গেছে, শিক্ষক মশিউর রহমান দুই বছর ধরে শহরের আমলাপাড়া বাড়ির দোতলায় একটি ফ্ল্যাটে বসবাস করেন। তিনি এ ফ্ল্যাটের একটি কক্ষে নিয়মিত ব্যাচ পরান।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে তার রুমে বসে থাকা অবস্থায় বাড়ির মালিকের ছোট ভাই অপু তার কক্ষে ঢুকে তাকে হুমকি দিয়ে বলেন বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য। এ সময় ভয়ে শিক্ষক মশিউর রহমান বাড়ির বাইরে চলে যান। রাত ৯টার দিকে শিক্ষক মশিউর রহমান বাসায় ফিরলে তাকে চারতলায় ডেকে নেওয়া হয়। পরে অপু লোহার হাতুড়ি এবং বাঁশ দিয়ে তাকে পেটায়। একপর্যায়ে শিক্ষক মশিউরের মাথায় আঘাত করলে তার মাথা ফেটে যায়। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় তিনি ফ্লোরে পড়ে থাকেন। ওই সময় তার রুমমেট আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষক শাহজাহান সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর মাথায় সাতটি সেলাই দেওয়া হয়। তার অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তারের পরামর্শে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এদিকে গতকাল সকালে আহত শিক্ষক মশিউর রহমানের পক্ষে নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সদস্য আবদুস সালাম, ওয়াহিদ সা’দত বাবু ও সরকার আলম অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোস্তাফিজুর রহমান এবং সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিচুর রহমানকে অবহিত করলে তাদের থানায় এসে মামলা করার পরামর্শ দেন। পরে গভর্নিং বডির তিন সদস্য সদর মডেল থানায় গিয়ে অপুর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। গভর্নিং বডির সদস্য আবদুস সালাম জানান, একটি সন্ত্রাসী মহল মশিউর রহমানকে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ ঘটনার পর ওই শিক্ষককে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। তিনি জানান, মশিউর রহমান একা ওই বাসায় অবস্থান করতেন। নিরাপত্তার কারণে তাকে ঢাকায় চিকিৎসা করানো হচ্ছে। নারায়ণগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনিচুর রহমান জানান, মশিউর রহমানকে আহত করার বিষয়ে মামলা নেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে আসামিকে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। এদিকে অভিযুক্ত অপুকে না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর