শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ মে, ২০১৯ ০৯:১৯

বর্ণবিদ্বেষী আচরণের অভিযোগে ক্ষমা চাইল বোস্টন মিউজিয়াম

অনলাইন ডেস্ক

বর্ণবিদ্বেষী আচরণের অভিযোগে ক্ষমা চাইল বোস্টন মিউজিয়াম
ফাইল ছবি

ভালো ব্যবহার এবং ভালো নম্বরের জন্য যে মিউজিয়ামে শিক্ষামূলক ভ্রমণের ছাড়পত্র মেলে ছাত্রছাত্রীদের, সেই বোস্টন মিউজিয়ামেই এবার উঠল বর্ণবিদ্বেষী আচরণের অভিযোগ।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস্‌'র ডরচেস্টার শহরের এইচওয়াইডিএল অ্যাকাডেমি চার্টার পাবলিক স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ২৬ জন ছাত্রছাত্রী গত সপ্তাহে বস্টন মিউজিয়ামে শিক্ষামূলক ভ্রমণে গিয়েছিল। ওই স্কুলের অধিকাংশ ছাত্রছাত্রীই কৃষ্ণাঙ্গ বা লাতিন আমেরিকার নাগরিক। অভিযোগ, সেখানে কৃষ্ণাঙ্গ ছাত্রীছাত্রীদের সঙ্গে মিউজিয়ামের কর্মীরা বর্ণবিদ্বেষী ব্যবহার করেন। কয়েকজন দর্শক তাদের উদ্দেশ্যে বর্ণবিদ্বেষমূলক উক্তি করলে তাদেরও প্রশয় দেন কর্মীরা। 

স্কুলের শিক্ষিকা মার্ভিলিন ল্যামির অভিযোগ, শ্বেতাঙ্গ ছাত্রছাত্রীদের থেকে তার স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের উপর পাহারাদারি বেশি করেছেন মিউজিয়ামের নিরাপত্তারক্ষী এবং কর্মীরা। কোনো কিছু স্পর্শ করে দেখতে দেওয়া হয়নি তাদের। অথচ শ্বেতাঙ্গ ছাত্রছাত্রীদের উপর কোনও পাহারা ছিল না। এক ছাত্রীর অভিযোগ, তাদের খাবার বা পানি পানেরও অনুমতি দেওয়া হয়নি। ছাত্রছাত্রীরা জানিয়েছে তারা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছে এই ঘটনায়।

ঘটনা জানাজানি হতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছে বোস্টনের শিক্ষা জগত। সমালোচনা ঝড় বইতে শুরু করায় নড়েচড়ে বসেছে মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ। গত শুক্রবারই মিউজিয়ামের ডিরেক্টর ম্যাথিউ টাইটেলবাম বলেছেন, ‘‌ওই ছাত্রছাত্রীরা অপমানিত হয়ে মিউজিয়াম ছেড়েছিলেন, কারণ শুধু তাদের গায়ের রং কালো বলে। এটা কখনওই গ্রহণযোগ্য নয়।’‌ 

মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষের তরফে বিবৃতি দিয়ে নিগৃহীত ছাত্রছাত্রীদের কাছে ক্ষমা চেয়ে বলেছে, পুরো ঘটনার তদন্ত করা হয়েছে। অভিযুক্ত দর্শকদের মিউজিয়ামে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি এবং অভিযুক্ত কর্মীদেরও নতুন করে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে।


বিডি-প্রতিদিন/তাফসীর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর