Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ মে, ২০১৯ ২১:৩৮

৩০ মে সন্ধ্যা ৭টায় মোদির শপথ

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

৩০ মে সন্ধ্যা ৭টায় মোদির শপথ

আগামী বৃহস্পতিবার (৩০ মে) সন্ধ্যা ৭টায় দ্বিতীয়বারের জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন নরেন্দ্র মোদি। তাকে শপথবাক্য পাঠ করাবেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। মোদি ছাড়াও আরও বিদায়ী মন্ত্রিসভার কয়েকজন সদস্যরাও শপথ নিতে পারেন। 

রবিবার রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে ট্যুইট করে একথা জানানো হয়েছে। সেখানে জানানো হয়, ‘৩০ মে সন্ধ্যা ৭টায় প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার সদস্যদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান ও গোপনীয়তা রক্ষার কাজ পরিচালনা করবেন মহামান্য রাষ্ট্রপতি।’ 

শুক্রবার বিকালে বিদায়ী মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে রামনাথ কোবিন্দের সাথে সাক্ষাৎ করে ১৬তম লোকসভা ভেঙে দেওয়ার প্রস্তাব রাখেন নরেন্দ্র মোদি। এরপর শনিবার বিকালে এনডিএ-সংসদীয় দলের বৈঠকে সর্বসম্মতিভাবে নেতা নির্বাচিত হওয়ার পর রাতেই রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে সরকার গঠনের দাবি জানিয়ে এসেছিলেন মোদি। এরপর গতকালই বিদায়ী লোকসভা ভেঙে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি। সেই সাথে মোদিকে সরকার গঠনের আহ্বান জানান। এরই মধ্যে নির্বাচন কমিশনের এক প্রতিনিধি দল রাষ্ট্রপতি ভবনে গিয়ে জয়ী সাংসদের একটি তালিকা তুলে দেন। আর এরপরই রবিবার রাষ্ট্রপতির এই ট্যুইট।  

তবে মোদির সাথে নতুন মন্ত্রিসভায় কারা কারা স্থান পাবেন তা প্রকাশ্যে না আসলেও রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের ট্যুইটে পরিষ্কার ওই দিন একাধিক মন্ত্রী শপথ নেবেন। যদিও মোদি এবং তার বিশ্বস্ত সহযোগী অমিত শাহ-উভয়েই মন্ত্রিসভায় কিছু নতুন মুখ আনার পক্ষপাতি। পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে যেখানে বিজেপি ২০১৪ সালে জয়ী ২টি লোকসভার আসন থেকে এক লাফে ১৮টি আসনে জয় পেয়েছে-সেখান থেকেও আরও বেশি সংখ্যায় মন্ত্রী করা হতে পারে বলে খবর। তবে সবচেয়ে জোর জল্পনা স্বরাষ্ট্র-অর্থ, পররাষ্ট্র এবং প্রতিরক্ষা-এই ‘বিগ ফোর’ নিয়ে। 

এমনকি শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে কাদের আমন্ত্রিত করা হবে সরকারের তরফে তাও ঘোষণা দেওয়া হয়নি। ২০১৪ সালে রাষ্ট্রপতি ভবনের ফোরকোর্টে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পাকিস্তানের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফসহ সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির শীর্ষ নেতারা। তবে এবার এমন কোন চিত্র দেখা যাবে কিনা পরিষ্কার নয়। 

বিডি-প্রতিদিন/২৬ জুন, ২০১৯/মাহবুব 


আপনার মন্তব্য